ভোট টানতে সম্পত্তির অধিকার নিয়ে মুসলিম মহিলাদের জন্য কুমিরের কান্না বিজেপির

0

টিডিএন বাংলা : বিজেপি মুসলিম মহিলাদের কাছে টানতে তাদের সম্পত্তির অধিকার নিয়ে আন্দোলন করার জন্য সংখ্যালঘু মোর্চাকে নির্দেশ দিয়েছে। বিজেপির বক্তব্য তাদের শরীয়তের পন্ডিতরা বলেছে যে শরীয়তে মহিলারা ২ শতাংশ সম্পত্তির অধিকার পায়। তাই তাদের অধিকার পাইয়ে দিতে আন্দোলন করবে বিজেপি। তাদের অভিজ্ঞতা ইতিমধ্যে তালাক নিয়ে নাড়াচাড়া দেওয়ার ফলে মুসলিম মহিলা ভোট উল্লেখযোগ্য ভাবে বেড়েছে। তাই উৎসাহিত হয়ে এবার শরীয়তে সম্পত্তির অধিকার নিয়ে আন্দোলন করবে মহিলাদের ভোট বিজেপির ব্যাঙ্কে টানার জন্য।

এতেই বিজেপির আসল উদ্দেশ্য পরিষ্কার যে তাদের আন্দোলন যতটা মানবিক তার থেকে বেশি ভোট কেন্দ্রিক। কারন তাদের পরিসংখ্যান পশ্চিম বাংলায় যে ২২টি লোকসভা কেন্দ্র তারা চিহ্নিত করেছে সেখানে ২০ শতাংশ মুসলমান ভোট আছে, তাই জিততে হলে ঐ ভোট তাদের পক্ষে আনতে হবে। তাই মুসলিম মহিলাদের জন্য কুমিরের কান্না।ছলচাতুরীর আশ্রয় নিলে মিথ্যার উপর ভর করতে হয়। তাই বিজেপির শরীয়ত পন্ডিতদের মুখ দিয়ে বলানো হচ্ছে মুসলিম মহিলারা পিতার সম্পত্তিতে ২শতাংশ অধিকার পায়। পাঠকদের জানানোর জন্য এই পন্ডিতদের কাছে প্রশ্ন মুসলিম মহিলারা ২শতাংশ সম্পত্তির ভাগ পায় এটা তারা কোথা থেকে পেলো?

এই সম্পর্কে যারা খোঁজ রাখেন তারা জানেন মুসলিম মহিলারা তাদের পিতার সম্পত্তিতে অর্ধেক অংশ ভাগ পায়। এছাড়া অতিরিক্ত হিসাবে পায় স্বামীর সম্পত্তিতে ভাগ এবং তাঁদের ভাই ও ছেলেমেয়েদের কাছে দেখভালের পূর্ণ নিরাপত্তা। আর মহিলারা তাদের প্রাপ্ত সম্পত্তি ব্যবহারের পূর্ন স্বাধীনতা ভোগ করেন। ঐ সম্পত্তিতে হস্তক্ষেপের কোন অধিকার তার স্বামীকে শরীয়ত দেয়নি।এমনকি স্ত্রীর সম্পত্তি ব্যবহার করার জন্য কোনো ধরণের মানসিক চাপ দেওয়া শরীয়ত লঙ্ঘনের সামিল। তবে স্ত্রী যদি স্বেচ্ছায় ব্যবহারের অনুমিত দেয় সেটা আলাদা ব্যাপার। এতদসত্ত্বেও ঐ স্ত্রীকে পূর্ণ মর্যাদার সাথে দেখভাল করার দায়িত্ব শরীয়ত স্বামীকে দিয়েছে। না হলে কঠিন শাস্তি পাওয়ার যোগ্য হিসাবে বিবেচিত হবেন ঐ স্বামী।

এবার বিজেপির শরীয়ত পন্ডিতদের কাছে জিজ্ঞাসা এরপর আর কোন অধিকার মহিলাদের পাইয়ে দিতেই মিথ্যা ব্যাখ্যা তৈরী করা হচ্ছে? না কি শুধু ভোট পাওয়ার জন্য ঘোলা জলে মাছ ধরার মিথ্যা বাসনা! মুসলমানদের কোনো অধিকারের তুলনায় ভোটকে দ্বিখণ্ডি করে যারা কিছু করতে যায় ওয়েলফেয়ার পার্টি তাদের এই ন্যাক্কারজনক ভূমিকার তীব্র নিন্দা জানায়। সাথে সাথে মুসলিম সমাজের কাছে আবেদন তারা এই সমস্ত ঠগবাজ, প্রবঞ্চকদের কাছে অধিকার পাওয়ার ইচ্ছা ছেড়ে অধিকার অর্জনের জন্য ঐক্যবদ্ধ হোন।

লেখক
ওয়েলফেয়ার পার্টির দঃ ২৪ পরগানার জেলা সভাপতি
জালালউদ্দিন আহমেদ