গলায় কাঁচি ?

মহম্মদ ঘোরী শাহ্, টিডিএন বাংলা : আমরা আর কয়েক সপ্তাহ পরেই উৎযাপন করতে চলছি স্বাধীনতার সত্তরতম বার্ষিক দিবস। অথচ যদি কেউ কর্তাবাবুর পিঠে কাদার দাগ দেখে বলেন, আপনার পিঠে কাদা ; ব্যস তক্ষনিই ক্ষোভের আকাশ ভেঙে পড়ে। পরাধীনতার কাঁচিটা কণ্ঠকে বিদীর্ণ করতে চায়।
তেমনটাই ঘটল নোবেলজয়ী অমর্ত্য সেন কে নিয়ে সুমন ঘোষের তথ্যচিত্র ‘দ্য আর্গুমেন্টেটিভ ইন্ডিয়ান’ এর কপালে। ভারতীয় সেন্সরবোর্ডের কর্তা জানিয়ে দিয়েছেন তথ্যচিত্রে ব্যবহৃত চারটি শব্দ বাদ না দিলে তথ্যচিত্রটি জনসমক্ষে আসবেনা। কি এমন চারটি শব্দ, কর্তাবাবুর সম্ভ্রমের মালকচা আলগা করে দেবে?
আজ যেন মনেহয় অপকর্ম করা নয়, অপকর্মের কথা বলাটাই অপরাধ। তাইতো গুজরাট, গোরু, হিন্দু ইন্ডিয়া ও ভারতের হিন্দুত্ব দর্শন নামক শব্দগুলো উচ্চারণ করাটাই অপরাধ। অথচ ভারতীয়দের স্মৃতিতে এই চারটি শব্দ অত্যন্ত বেদনাময়।
যাইহোক ঔধত্যের স্পৃহাতে আজ কাঁচি যে গর্বিত তাই মনে হয়। তাই চলাতে, বলাতে পোষাকে, খাদ্যাভাসে স্বাধীনতা নেই।