আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়কে মাইনোরিটি স্ট্যাটাস দিক রাজ্য সরকার

0

পাঠকের কলমে, টিডিএন বাংলা : কলকাতা মাদ্রাসা আলিয়া তৈরী হয়েছিল ১৭৮০ সালে। পরে মাদ্রাসা ছাত্র ইউনিয়ন এর দীর্ঘ সাধনা ও লড়াই এর প্রতিফল হিসাবে ২০০৭ সালে বিশ্ববিদ্যালয়ে রুপ নেয়।

একমাত্র সংখ্যালঘু ছাত্র-ছাত্রীদের, বিশেষ করে মুসলিম সংখ্যালঘু ছাত্র-ছাত্রীদের শিক্ষার মেরুদণ্ড হিসাবে তৎকালিন রাজ্য সরকার মাদ্রাসা ছাত্র ইউনিয়ন এর আন্দোলন কে সম্মান জানিয়ে আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয় তৈরী করেন। কিন্ত দুঃখের বিষয় হল সেই বিশ্ববিদ্যালয়ে সংখ্যালঘু ছাত্র-ছাত্রীদের শিক্ষার ভবিষ্যৎ আজও পর্যন্ত কোন সুরক্ষিত নয়, ক্রমে ক্রমে তাদের ভবিষ্যৎ ধ্বংসের দিকে চলে যাচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয় তৈরী হওয়া থেকে আজও পর্যন্ত ছাত্র-ছাত্রীদের দাবি ছিল ও আছে  উন্নত মানের শিক্ষার পরিকাঠামো তৈরী করে আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়কে সংখ্যালঘু মযর্যদা দেওয়া হোক। আজ সেই দাবিকে সামনে রেখে রাজ্যের সকল মুসলিম সংগঠনের নেতা সহ একাধিক শিক্ষানুরাগী ব্যক্তি বর্গরা চিন্তা ভাবনা করতে শুরু করেছে। তাদের সকলের দাবি সরকার বিধানসভায় বিল এনে আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়কে মাইনোরটি স্ট্যাটাস দিক।

Advertisement
head_ads

হ্যাঁ ছাত্র-ছাত্রীদের একই দাবি যে, সরকার বিধানসভায় বিল এনে আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়কে মাইনোরিটি স্ট্যাটাস দিক। তাই সেই দাবিকে সামনে রেখে আজ আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদ সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে, মুসলিম সংগঠন সহ সমস্ত শিক্ষানুরাগী ব্যক্তি বর্গের এই চিন্তা ভাবনা কে বাস্তবায়িত করার জন্য ছাত্র-ছাত্রীদের পক্ষ হতে মুখ্যমন্ত্রী কে একটি ডেপুটেশন দেওয়া হবে। যাতে কাজটি সকলের দ্বারায় দ্রুত আইনের মাধ্যমে বাস্তবায়ন হয়।

পরিশেষে  জানাই সকল মুসলিম সংগঠনের নেতা ও শিক্ষানুরাগী ব্যক্তিবর্গদেরকে, আপনাদের এই চিন্তা ভাবনা আমাদের অনেক আনন্দ দিয়েছে। আমরা অত্যন্ত গর্বিত আপনাদের জন্য, আপনারা আগিয়ে চলুন, জাতী ও শিক্ষা সমাজের সার্থে আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়কে রক্ষা করুন, আমরা সবসময় আপনাদের সাথে আছি এবং থাকব। আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয় রক্ষা, দেশ ও রাজ্যের মধ্যে সম্প্রীতি রক্ষার জন্য যদি আমাদের রক্ত দিতে হয় এবং জেলে যেতে হয়, তাতে আমরা সকলে প্রস্তুতি আছি ইন শা আল্লাহ।

              সাধারণ সম্পাদক
ছাত্র সংসদ
আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয় তালতলা ক্যাম্পাস

(মতামতের জন্য কতৃপক্ষ দায়ী নহে)

head_ads