দার্শনিক হওয়ার আগে নিশ্চিত হও যে তুমি যথেষ্ঠ সম্পদশালীঃ শাহ রুখ খান

“দার্শনিক হওয়ার আগে নিশ্চিত হও যে তুমি যথেষ্ঠ সম্পদশালী”।হ্যাঁ,সদ্য প্রকাশিত জি কিউ ইন্ডিয়ার নেওয়া সাক্ষাতকারে এমনই মন্তব্য করলেন বিশ্বের সবথেকে বড় মুভিষ্টার, শাহরুখ খান। তিনি আরও বলেন,”যখন আমার বন্ধুরা বলে যে তাঁরা একজন ক্রিয়েটিভ নোভেলিষ্ট চাইছে, আমি তাদের বলি যে, আগে কপিরাইটার হতে, কিছু টাকা অর্জন করুন। ডোন্টবি আস্ট্রাগলিং আর্টিষ্ট, বি আ হ্যাপি ওয়ান।”যে মন্তব্য নিয়ে সমালোচনা হচ্ছে নানা মহলে। তাঁর মানে উনি কী বলতে চাইছেন, পৃথিবীর যাঁরা প্রতিষ্ঠিত দার্শনিক, যাঁদের বিনা অর্থ-সম্পদে মানুষ মেনে নিয়েছে, তাঁরা ভুল ছিলেন? নাকি খুব অল্প বয়সে মাতাপিতা হারানোর প্রতিক্রিয়া? এ বিষয়ে তিনি বলেন, “আমি এখন ৫১। আমি আমার বাবাকে হারিয়েছি ১৪ বছর বয়সে, আর মাকে ২৫ বছরে। সেই শুন্যতা কখনও পুরন হবেনা। যদি তুমি তোমার মাতা পিতাকে অল্প বয়সে হারিয়ে থাকো, তবে তোমাকে খুব তাড়াতাড়ি বড় হতেই হবে। তখন তুমি খেলনা নিয়ে খেলতে পারবেনা,তোমাকে এই বাস্তব পৃথিবীর সাথে লড়াই করতে হবে। আমি এখন আমার ছেলে-মেয়ের খেলনা নিয়ে খেলা করি। লোকজন মনে করে আমি একজন ভাল পিতা, কিন্তু সেটা সত্যি নয়। আমি জাস্ট একজন পিতা,যার কোনো খেলনা ছিলনা।”


পৃথিবীর ধনী অভিনেতাদের মধ্যে দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেছেন শাহরুখ। পিছনে ফেলেছেন হলিউড জায়ান্টদেরও। ধনী অভিনেতার তালিকাতেই শুধু নয়, সোসাল ওয়ার্কেও তিনি খুবই অ্যাক্টিভ। নীরবে কাজ করতেই তিনি পছন্দ করেন। তাঁর মতে, “আল-কুরআনে উল্লেখ রয়েছে, যদি তোমার দান কোনো কারনে করে থাক তবে সেটা দান নয়। তাই আমরা নীরবে কাজ করতে পছন্দ করি।” তিনিই একমাত্র ভারতীয়, যার চ্যারিটি এবং সোসাল ওয়ার্কের জন্য ইউনেস্কো থেকে পুরুস্কৃত হয়েছেন। তাঁকে যখন জিজ্ঞেস করা হয়-কোন ব্যক্তিগত কাজে টাকা খরচ করতে পছন্দ করেন? কিং খান বলেন, “ইটস ভেরি ইম্পরট্যান্ট ফর মি টু স্মেল গুড। আমি দুরকমের সুগন্ধি ব্যাবহার করি – একটি দুনহিল, যেটা একমাত্র তাদের লন্ডনের স্টোরে পাওয়া যায়, সেই সঙ্গে ডিপ্তকুই। আমি ফ্যাশনের মস্ত বড় সমঝদার নই, তবে আমার পছন্দ বেশ ভালো রয়েছে। আই ডোন্ট লাইক ওয়ারিং ফরমাল সুজ, তাই বেশিরভাগ সময়ে স্নিকারস কিনি।


বলিউড বাদশার বাকেট লিস্টে কি রয়েছে?এসআরকে বলেন, “আমি এখন ইটালিয়ন রান্না শিখছি। আমি পাস্তা,রিসটো, তিরামিজু বানাতে পারি, কিন্তু খুবই ভাল লাগে যখন কেউ সেগুলো খেয়ে তৃপ্তি পায়। আরও ভাল করে রান্না করার জন্য একটা ন্তুন কিচেনও তৈরী করছি। কয়েক বছর আগে স্পেন থেকে দুটো দামি গিটার কিনেছিলাম, একটা আমার জন্য আর অন্যটা আরিয়ানের জন্য,তাঁকে বলেছিলাম একসঙ্গে গিটার শিখব। কিন্তু বিষয়টা হল, সে বেশ ভালই শিখে নিয়েছে। আমার ছোট ছেলে আবরাম, তারও এই বয়সেই মিঊসিকের ঝোক রয়েছে। ভেবে রেখেছি, যদি কোনোদিন গীটার শিখতে পারি, একটা ব্যান্ড খুলব।
শুধু সিনেমা জগতেই নয়, ইন্টারনেটের দুনিয়াতেও তিনিই বাদশা। সদ্য প্রকাশিত ট্যুইটারের রিপোর্ট বলছে, মোস্ট এনগেজড পারসন ইন ইন্ডিয়া হলেন শাহরুখ খান। তাঁর সোশাল মিডিয়া সম্পর্কে কি মতামত? তিনি বলেন, “আমরা এমন সময়ে বাস করছি, যেখানে আমরা সবাই ওভার ইনফর্ম, সেখানে প্রচুর নয়েজ। টিভির লোকজন ভাবছে আমি পাঁচ ঘন্টা লেট,নিউজপেপারের ছেলেটা ভাবছে আমি একদিন পিছিয়ে, তারপরও খবর হচ্ছে। হোক সেটা সত্যি বা মিথ্যা, কারণ, ইটস নো স্কিন অফ দেয়ার ব্যাক। কিন্তু সত্যিটা হল, এটা সমস্যা করে, আর তাঁর একটা তাৎপর্যও রয়েছে। সোশাল মিডিয়াতে মানুষজন যেটা বলে থাকে, করে থাকে, সেটা খুব কম পরিমানই বৈধ, সিস্টেমিট্যাকালি কিছুই হচ্ছেনা। ব্যাপারটা অনেকটা এইরকম, বেমানান ফ্যামিলি মেম্বার হয়ে অন্যদের আওয়াজকে জোর করে দাবিয়ে দিচ্ছ। এই ডিজিটাল দুনিয়া বেমানান ফ্যামিলি মেম্বারে ভর্তি।

মন্তব্য করুন -