আরও ৬২ হাজার লোক নিচ্ছে রেল, মোট ৯০ হাজার নিয়োগে বিশ্বরেকর্ড

0

টিডিএন বাংলা ডেস্ক : ২৬ হাজার কর্মী নিয়োগের ঘোষণার পরের সপ্তাহেই আরও ৬৩ হাজার লোক নেওয়ার জন্য বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে রেলমন্ত্রক। অর্থাৎ, সব মিলিয়ে সংখ্যাটা প্রায় ৯০ হাজার। যা বিশ্বের সর্বাধিক নিয়োগ প্রক্রিয়া। প্রেস ইনফরমেশন ব্যুরোর বিবৃতিতেই
বিষয়টি স্পষ্ট। সেখানে বলা হয়েছে, চলতি বছরের এপ্রিল-মে মাসে এই কর্মী নিয়োগের জন্য যে কম্পিউটার বেসড পরীক্ষা নেওয়া হবে, সেইমাপের বড় পরীক্ষা পৃথিবীতে আর কোথাও হয়নি। বলা হচ্ছে, ‘ওয়ার্ডস লার্জেস্ট রিক্রুটমেন্ট
প্রসেস’।

এই ৮৯ হাজার ৪০৯ কর্মী নিয়োগ করা হবে গ্রপ সি’তে। লেভেল ওয়ান এবং লেভেল টু’তে। গ্রূপ ডি পদই এখন গ্রূপ-সি লেভেল ওয়ান নামে
পরিচিত রেলে। এই পদেই দ্বিতীয় দফায় ৬২ হাজার ৯০৭ নিয়োগ করার বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে রেলমন্ত্রক। ট্র্যাক মেইনটেইনার, পয়েন্টস ম্যান, হেল্পার, গেটম্যান, পোর্টার প্রভৃতি
পদে নিয়োগ করা হবে এই ক্ষেত্রে। ১৮ থেকে ৩১ বছর বয়সিরা আবেদন যোগ্য। দশম শ্রেণী পাশ
করার পর ইন্ডাস্ট্রিয়াল ট্রেনিংয়ের (আইটিআই) শংসাপত্র থাকলে আবেদন করা যাবে। কলকাতা আরআরবি শুধুমাত্র পূর্ব রেলে এই পদে ২ হাজার ৩৬৭ জনকে নিয়োগ করবে। এই বিজ্ঞপ্তি (নং সিইএন ০২/২০১৮) প্রকাশিত হয়েছে ১০ ফেব্রুয়ারি। অনলাইনে আবেদন
জানানোর শেষদিন ১২ মার্চ।

এর এক সপ্তাহ আগে গ্রুপ-সি লেভেল টু তে ২৬ হাজার ৫০২ জন নিয়োগের জন্য বিজ্ঞপ্তি (নং সিইএন ০১/২০১৮) জারি করেছিল রেলমন্ত্রক। এক্ষেত্রে নিয়োগ করা হবে এসিস্ট্যান্ট লোকো পাইলট এবং টেকনিশিয়ান (ফিটার, ক্রেন ড্রাইভার, ব্ল্যাকস্মিথ, কার্পেন্টার) পদে। ১৮ থেকে ২৮ বছর বয়সিরা এই পদে আবেদনযোগ্য। দশম শ্ৰেণী পাশের পর আইটিআই শংসাপত্র অথবা ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ডিপ্লোমা বা স্নাতকরা আবেদন করতে পারবেন। কলকাতা আরআরবি আসিস্ট্যান্ট লোকো পাইলট পদে পূর্ব রেল এবং
দক্ষিণ-পূর্ব রেলে নিয়োগ করবে যথাক্রমে ৫৪ এবং ৩৭১ জনকে। এবং টেকনিশিয়ান পদে পূর্ব রেল, দক্ষিণ পূর্বরেল ও কোলকাতা মেট্রোয় নিয়োগ করা হবে যথাক্রমে ৯২৫, ৩২০ এবং ১৫৪ জনকে। এই ক্ষেত্রে অনলাইনে আবেদন জানানোর শেষদিন ৫ মার্চ।

২০১৪ সালের নির্বাচনী প্রচারে বিপুল কর্মসংস্থানের আশ্বাস দিয়েছিল বিজেপি। কিন্তু ক্ষমতায় বসার পর। চারটি পূর্ণাঙ্গ বাজেট পেশ করার পরেও মোদি সরকারের বিরুদ্ধে বিজেপির অভিযোগ, কর্মসংস্থান তৈরির রূপরেখা স্পষ্ট করা নেই কোথাও। সেই দাবিতে সম্প্রতি ঘি ঢালে মোদি সরকারের শীর্ষ নেতৃত্ব। বলা হয়, যাঁরা চপ ভেজে দিনে ২০০ টাকা রোজগার করেন, তাঁদের কি বেকার বলা যায় আদৌ! এই নিয়ে বাগযুদ্ধে জড়িয়ে পড়েন অমিত শাহ এবং প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী পি চিদম্বরম। ভারতীয় রেলে এই রেকর্ড নিয়োগ সম্ভবত বিরোধীদের চুপ করিয়ে দিতে পারে। তবে এর পিছনে আরও একটি কারণ অবশ্যই রয়েছে। ৯০ হাজারি এই নিয়োগ প্রক্রিয়া চলবে বছরভর। আর ২০১৯ সালেই আগামী লোকসভা নির্বাচন। তাতে এর ফায়দা তুলতে নিশ্চয় আটঘাট বাঁধছেন নরেন্দ্র মোদি-অমিত শাহরা। (সৌজন্যে – বর্তমান)