উত্তরপ্রদেশে উচ্চ বর্ণ তোষন : ৩১২ জন ল‍’ অফিসারের মধ্যে ১৫২ জনই ব্রাহ্মণ সম্প্রদায়ের

টিডিএন বাংলা ডেস্ক : জাতির তাস খেলাই উত্তরপ্রদেশ যে একই থেকে গিয়েছে তার প্রমান বর্তমান সরকারের আমলেও। এবার ব্রাহ্মন তোষন।এর প্রমান উত্তরপ্রদেশের মুখ‍্যমন্ত্রী যোগী আদিত‍্যনাথের ৭ জুলাই নিয়োগকৃত ৩১২ জন ল‍্য অফিসারের মধ্যে ১৫২ জনই ব্রাহ্মণ সম্প্রদায়ভূক্ত।

গতমাসে রাইবেরেলিতে পাঁচজন ব্রাহ্মণ হত্যার পর তাদেরকে সন্তুষ্ট করতেই এই পদক্ষেপ বলা হচ্ছে।আবার,মনে করা হচ্ছে যে, আদিত‍্যনাথ ঠাকুর জাতিভূক্ত হওয়ায় সরকারি চাকুরিতে ঠাকুরদের সংখ্যাগরিষ্ঠ করতে চাইছেন।

ব্রাহ্মণ কতৃত্বপূর্ণ এই পাঁচ শ্রেণীর নব‍্য নিযুক্ত ল‍’ অফিসার হলেন-চিফ স্টান্ডিং কাউন্সিল, অ্যাডিশন‍্যাল চিফ স্টান্ডিং কাউন্সিল, স্টান্ডিং কাউন্সিল, ব্রিফ হোল্ডার (সিভিল) এবং ব্রিফ হোল্ডার (ক্রিমিন‍্যিল)। নব নিযুক্ত ৪ জন চিফ স্টান্ডিং ক‍্যাউনসিলের মধ্যে ৩ জন, ২৫ জন অ্যাডিশন‍্যাল চিফ স্টান্ডিং কাউন্সিলের মধ্যে ১৩ জন, ১০৩ জন স্টান্ডিং কাউন্সিলের মধ্যে ৫৮ জন, ৬৬ জন ব্রিফ হোল্ডার (সিভিল) এর মধ্যে ৩৬ জন এবং ১১৪ জন ব্রিফ হোল্ডির (ক্রিমিন‍্যিল) এর মধ্যে ৪২ জনই ব্রাহ্মণ সম্প্রদায়ভূক্ত, স্ক্রুল ডট ইন এই রিপোর্টে প্রকাশ করেছে।

নতুন নথিভুক্তির বিচ্ছিন্নতা :

রাজ‍্যের মোট জনসংখ্যার ৪০ শতাংশ অন‍্যান‍্য অগ্রসর শ্রেণীর হলেও মাত্র ১৬ জন আইনজীবী ওবিসি সম্প্রদায়ভূক যেটা মোট নিয়োগ তালিকার ৫ শতাংশ। নব নিযুক্ত ১৫২ ব্রাহ্মণ সম্প্রদায়ভূক্তের মধ্যে বেশিরভাগই উচ্চবর্ণের। ২৮২ জন নব নিযুক্ত ল‍’ অফিসারের মধ্যে ৯০ শতাংশের বেশি ব্রাহ্মণ যারা ঠাকুর, ভূমিহার, কায়াস্ত এবং বৈশ্য।

ওবিসি ও ব্রাহ্মণের মধ্যে বিরোধ :

রাইবেরেলির উনচাহার থানার আপ্তা গ্রামে ২৬ জুন রাতে পাঁচজন ব্রাহ্মণের হত্যায় অভিযুক্ত গ্রামবাসীরা অনন্য অগ্রসর শ্রেণীভূক্ত। তারপর থেকে ক্ষমতাশীল দল দুই পক্ষকে নিজের দিকে টানতে শব্দের লড়াই শুরু করেছে। বিজেপি নেতৃবৃন্দ পরিস্থিতি সামাল দিচ্ছে এবং আদিত‍্যনাথ ৫ জন মৃত্যেুর পরিবারকে ৫ লক্ষ করে ক্ষতিপূরন দেওয়ার ঘোষনা করেন।

রাইবেরেলি হত্যাকান্ডের পর ভারতের সর্বাধিক জনবহুল রাজ‍্যে ব্রাহ্মণদের শান্ত করার দৌড়ে বহু-বর্ণবাদী ঐক্য টিকিয়ে রাখা কঠিন হয়ে পড়ে। ক্ষমতাশীল দল সম্ভাব্য রাজনৈতিক ক্ষতি নিয়ন্ত্রণের জন্য ব্রাহ্মণ‍্য প্রেম বজায় রাখতে সরকারি পদে নিয়োগ করে রাজ্যের উচ্চবর্ণ ও অন্যান্য অন অগ্রসর শ্রেণির দ্বন্দ্বে থেকে স্বস্তি পেতে চাইছে।