খোদ হিন্দুত্ববাদী নেতার মেয়ে এক মুসলিম ছেলের সঙ্গে পালিয়ে গেল!

টিডিএন বাংলা ডেস্ক: গেরুয়া ব্রিগেড একটু যেন ছেঁকা খেলো , তাদেরই বিশিষ্ঠ হিন্দুত্ববাদী নেতার মেয়ে এক মুসলিম ছেলের সঙ্গে বিয়ে করার জন্য পালিয়ে গেল ।জেলায় এই ধরনের ঘটনা ক্রমবর্ধমান হারে বেড়ে চলায় তিতি-বিরক্ত হিন্দুত্ববাদী নেতারা দেশের স্বরাষ্ট্র দপ্তরে অভিযোগ পত্র জমা দেয় লাভ জেহাদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক পদক্ষেপের দাবিতে ।

তথ্যানুযায়ী, এই তরুণ-তরুণী মুম্বই শহরে রেজিস্ট্রী করে তাদের আইনি বিবাহ সম্পন্ন করে । যাইহোক ২৩ বছর বয়সী মেয়েটিকে এখন ব্যাঙ্গালোরে তার বাবার বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ঘটনাবহুল এই ঘটনা আকর্ষণীয় মোড় নিতে থাকে, ছেলে, মুম্বই এর মানকুর্ড এর বাসিন্দা মহম্মদ ইকবাল চৌধুরী পুলিশ কমিশনারের কাছে লিখিত অভিযোগ  করেন যে , ব্যাঙ্গালোর থেকে আসা একদল গুন্ডাবাহিনী, গেরুয়া ব্রীগেডের লোক বলেই সন্দেহ করা হচ্ছে যারা তার স্ত্রীকে মুম্বই এর ইনওরবিট সপিং মল থেকে সন্ধ্যার সময় অপহরণ করে তুলে নিয়ে যায় । যাইহোক,স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমগুলি জানায়  যে মেয়েটি নিজের ইচ্ছাতেই বাড়িতে চলে এসেছে এমনটাই সে নাকি কোর্টের স্বাক্ষরিত এফিডেফিট পেপারে উল্লেখ করেছে এবং সেটি মহারাষ্ট্র পুলিশের কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।  এই হিন্দুত্ব নেতার আসল বাড়ি কাশরাগড়, বেশ কিছু বছর হলো তিনি স্বপরিবারে শহরে বসবাস করছেন। তার মেয়ে একটি বেসরকারি কলেজে পড়াশুনা করছিলেন। ফেসবুকের মাধ্যমেই এই মুসলিম টেকন্যিশিয়ান চৌধুরীর সঙ্গে তার যোগাযোগ ও আলাপচারিতা। বন্ধুত্ব থেকেই ভালোবাসার জন্ম । পাঁচ মাস আগে সে বাড়িছেড়ে মুম্বই শহরে পালিয়ে যায় চৌধুরীর সঙ্গে নতুন জীবন শুরু করার জন্য।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রী নির্মলা সিতারামণ তাঁর সম্প্রতী সফরে উপলকূলবর্তি এই শহরে এলে গেরুয়া বাহিনীর সদস্যরা তাঁর কাছে এধরনের ঘটনার বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপের দাবি জানিয়ে স্মারকলিপি প্রদান করে।

এই ঘটনাটি সামনে আসার আগে  একই রকমের আর একটি ঘটনা ঘটে যেখানে ২৫ বছর বয়সি এক হিন্দু যুবতী তার  বিয়ের ঠিক একদিন আগে (যদিও তার সম্প্রদায়েরই এক হিন্দু ছেলের সঙ্গে বিয়ে স্থির ছিলো) এক মুসলিম যুবকের সঙ্গে পালিয়ে যায় । গেরুয়া বাহিনী এধরনের ঘটনায় অগ্নিশর্মা আর সে কারণেই সবগুলিকেই লাভ-জেহাদ বলে চালিয়ে দিতে চায়।
(টাইমস অফ ইন্ডিয়ার এই খবরটি টিডিএন বাংলার পাঠকদের জন্য অনুবাদ করেছেন একরামুল মোল্লা)