বাবরি মসজিদ মামলার রায় মুসলিম সম্প্রদায়ের পক্ষেই আসবে: জামায়াতে ইসলামি

টিডিএন বাংলা ডেস্ক: জামায়াতে ইসলামি হিন্দ বাবরি মসজিদ ধ্বংস এবং টাইটেল স্যুটের যে মামলা সুপ্রিম কোর্টের অধীনে চলছে তার দ্রুত নিষ্পত্তির দাবি করে।সেই সাথে সংগঠনটি আশাবাদী যে, মামলার রায় মুসলিম সম্প্রদায়ের পক্ষেই আসবে । খবর দি গার্ডিয়ানের।

একদিন পর রাম জন্মভূমি নিয়ে চলা টাইটেল স্যুট মামলার সুনানি হবে, তার আগেই জামাতে ইসলামি হিন্দ স্পষ্ট ভাষায় কোর্টের বাইরে আপসে মিমাংসা করার কোনরুপ সম্ভাবনার কথা নাকচ করে দিল। সেই সঙ্গে তাঁরা আশাবাদী যে, সর্বোচ্চ আদালতের রায় মুসলিম সম্প্রদায়ের পক্ষেই যাবে।
সংগঠনের সর্ব ভারতীয় সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার মুহাম্মদ সেলিম কিছুদিন আগে সাংবাদিকদের বলেন, “বাবরি মসজিদের সমস্যার সমাধান আদালতের বাইরে গিয়ে আলোচনার মাধ্যমে হওয়া সম্ভব নয়। বিগত দিনেও দশবারের ও বেশি এ ধরনের চেষ্টা-প্রচেষ্টা করা হয়,কিন্তু সব শেষমেষ ব্যর্থ হয়,”

টাইটেল স্যুট ও বাবরি মসজিদ ধ্বংস এই উভয় মামলার খুব দ্রুত নিষ্পত্তির দাবি জানান জামাতে ইসলামি হিন্দের সহ সভাপতি নুসরত আলি সাহেবও।

সর্বোচ্চ আদালত প্রায় সাত দশক ধরে কোর্টে বিচারঅধীনে থাকা এই টাইটেল স্যুট এর সুনানি শুরু করতে চলেছে ।  প্রায় দু দশক ধরে বাবরি মসজিদ ধ্বংসের মামলাও কোর্টের বিচার অধীন।  পনেরোশো শতকের সময় তৈরী এই মসজিদে ১৯৪৯ সালে রাতের আঁধারে কিছু হিন্দু দেবদেবীর মূর্তি ঢোকানো হয় । এরপর ১৯৯২ সালে প্রকাশ্য দিবালোকে বিশাল হিন্দু জনতা দ্বারা মসজিটি ধ্বংস করা হয়।

অতি সম্প্রতি বিচারক লিবারহান বাবরি মসজিদ ধ্বংসের মামলাটি প্রথম নিষ্পত্তি করার যে পরামর্শ দিয়েছেন সে বিষয়ে জামাত নেতারা কোন মন্তব্য করেতে অস্বীকার করেন। বিচারক লিবারহান দীর্ঘ ১৭ বছর ধরে মসজিদ ধ্বংসের উপর অনুসন্ধান কার্য চালানোর পর ২০০৯ সালে তিনি তার রিপোর্ট জমা দেন।
জামায়াতে ইসলামির নেতারা বলছেন,
“বিষয়টি দেশের সর্বোচ্চ আদালতের বিচার অধীন এবং জামাত আশাবাদী যে, রায় তাঁদের অনুকূলেই আসবে । যদিও সম্প্রতী কিছু সংগঠন ও ব্যাক্তি স্বঘোষিত ভাবে আপোষকারীর ভূমিকায় বাবরি মসজিদ সমস্যায় হস্তক্ষেপ করার চেষ্টা করে। জামায়াতে ইসলামি হিন্দ কোর্টের বাইরে গিয়ে বাবরি মসজিদ সমস্যার নিষ্পত্তির কোনরুপ সম্ভাবনাকে সরাসরি নাকচ করে।”