জার্মানিতে মুসলমানদের সন্ত্রাস বিরোধী বিক্ষোভ

0

টিডিএন বাংলা ডেস্ক : ইসলামের নামে সন্ত্রাস ও উগ্রবাদী ছড়ানোর প্রতিবাদে পশ্চিম জার্মানিতে বিক্ষোভ করেছে শত শত মুসলমান। প্রতিবাদকারীরা জানান, ইসলামের সঙ্গে সন্ত্রাসবাদের কোনো সম্পর্ক নেই। সন্ত্রাসীদের কোনো ধর্ম নেই।
এ সময় ঐক্যবদ্ধভাবে সন্ত্রাসবাদ রুখে দেয়ার আহ্বান জানান তারা। এছাড়াও, বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে নানা দাবিতে বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
গত শনিবার পশ্চিম জার্মানির কোলনে সন্ত্রাসবিরোধী শান্তি মিছিলে সাড়ে ৩ হাজার প্রতিবাদকারী অংশ নেন। যার মধ্যে অধিকাংশই মুসলমান।
সম্প্রতি ইউরোপসহ বিভিন্ন স্থানে ঘটে যাওয়া সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের তীব্র নিন্দা জানিয়ে অংশগ্রহণকারী মুসলমানরা বলেন, সন্ত্রাসবাদের সঙ্গে তাদের কোনো সম্পর্ক নেই। শান্তির বার্তা লেখা বিভিন্ন ব্যানার ফেস্টুন ও প্ল্যাকার্ড ছিলো প্রতিবাদকারীদের হাতে।
আমি মুসলিম। মুসলিম পরিবারে জন্ম গ্রহণ করেছি। আমি চাই না কেউ আমরা অনুভূতিতে আঘাত করুক। ইসলামের নামে কেউ মানুষ হত্যা করুক; এটা আমি কোনো ভাবেই চাই না।
একটি গুরুত্বপূর্ণ বার্তা দিতে আমরা শান্তির মিছিলে এসেছি। আমরা মুসলমান। সন্ত্রাস ও উগ্রবাদের বিরুদ্ধে আমাদের অবস্থান।
ভেনেজুয়েলায় সরকারবিরোধীরা আন্দোলন, বিক্ষোভের পথ ছেড়ে আয়োজন করে আস্থার সমাবেশের। শনিবারের শতাধিক বিরোধী দলীয় কর্মী অংশ নেন। এসময় তারা ধর্মীয় বিভিন্ন রীতিনীতি উপস্থাপন করেন। বিরোধী দলীয় নেতা লিলিয়ান তিনতুরি এবং আটক আরেক বিরোধী দলীয় নেতা লিওপলডু লোপেজের স্ত্রীও এ সমাবেশে অংশ নেন।
লিওপলডুর লোপেজের স্ত্রী বলেন, ‘এটি রাজনীতি বা অর্থনীতির কোনো বিষয় নয়। এটি মানবাধিকার এবং শিশুর আগামীর প্রশ্ন। একবার ভাবুন আপনার শিশুর বুকে গুলি লেগেছে এবং সে মারা গেছে। ঠিক এ ঘটনাটিই ঘটছে ভেনেজুয়েলায়। আমরা আমেরিকান স্টেট অর্গানাইজেশনকে বিশ্বাস করি। আমি তাদের অনুরোধ করছি, এ পরিস্থিতি থেকে মুক্তি দিতে আমাদের সঙ্গে সমস্বরে আওয়াজ তুলুন। একইসঙ্গে ভেনেজুয়েলায় স্থিতিশীলতা ফিরিয়ে আনতে বিশ্ববাসীর নিকট আহ্বান জানাচ্ছি।’
স্পেনের মাদ্রিদে সরকারি ঘোষণা অনুযায়ী পর্যাপ্ত সংখ্যক শরণার্থী আশ্রয়ের দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে কয়েক হাজার মানুষ। শনিবার শরণার্থী বিষয়ক কয়েকটি সংঠনের উদ্যোগে মাদ্রিদের রাস্তায় আয়োজিত সমাবেশে শরণার্থীদের আশ্রয়ের পাশাপাশি তাদের সুযোগ-সুবিধা নিশ্চিতের দাবি জানান বিক্ষোভকারীরা।
বিক্ষোভকারীরা বলেন, যুদ্ধবিধ্বস্ত মানুষকে আশ্রয় দেয়া মানবিক দায়িত্ব। আর মানবিকতা কখনো অবৈধ হতে পারে না। অভিবাসীরা কখনো অবৈধ নয়। জীবন ও জীবিকার তাগিদে পৃথিবীর যেকোনো প্রান্তে আশ্রয় পাওয়া প্রত্যেক মানুষের অধিকার বলেও জানান তারা।
ঠিক উল্টো দাবিতে বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়েছে জার্মানির বার্লিনে। ইউরোপের ঐতিহ্য, সংস্কৃতি ও জীবনধারা অটুট রাখার দাবিতে জার্মানিতে অভিবাসী প্রবেশের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করে প্রায় ১ হাজার অভিবাসন বিরোধী। এসময় কয়েকজন বিক্ষোভকারীকে আটক করে নিরাপত্তাবাহিনী।

head_ads