দাঙ্গার কারণ ভিত্তিহীন, বলল শ্রীলঙ্কার সরকার

0

টিডিএন বাংলা ডেস্কঃ শ্রীলঙ্কার দাঙ্গার সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, যে কারণ দেখিয়ে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা ছড়িয়ে পড়েছে, তার কোনো ভিত্তি নেই এবং যারা এর পেছনে রয়েছে, তাদের গ্রেপ্তার করা হবে।
অবস্থার অবনতি হওয়ায় জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হল শ্রীলঙ্কায়।  আজ ১০ দিনের জন্য এই জরুরি অবস্থা জারির ঘোষণা করা হয়েছে। এরপরই শহরের রাস্তায় নামে সশস্ত্র পুলিশ কমান্ডো। ক্যান্ডিতে নতুন করে কারফিউ জারি করা হয়।

সরকারি তরফে বলা হয়েছে, সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা যাতে আর ছড়িয়ে পড়তে না পারে, সেই জন্যই দেশজুড়ে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে।

গতকাল সোমবার ক্যান্ডিতে বৌদ্ধ ও মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে সংঘর্ষ হয়, তারপরেই এই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

সরকারি মুখপাত্র দয়াসিরি জয়াসেকারা বলেন, ‘মন্ত্রিসভার একটি বিশেষ বৈঠকে জরুরি অবস্থা জারির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা ঠেকানোর জন্য আগামী ১০ দিন পুরো দেশে জরুরি অবস্থা জারি থাকবে।’ তিনি আরও বলেন, কিছু মানুষ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে দাঙ্গা উসকে দিতে চাইছে। এসব লোকদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে সতর্ক করেন জয়াসেকারা।
শ্রীলঙ্কার ক্যান্ডি গত রোববার অশান্ত হয়ে ওঠে। পুলিশ বলেছে, সিংহলি এক ট্রাকচালকের শেষকৃত্যের পরই মুসলমানদের বিভিন্ন দোকানে হামলা চালানো হয়। ওই ট্রাকচালকের মৃত্যু ঠিক কী কারণে হয়েছে—সে ব্যাপারে স্পষ্ট কোনো তথ্য জানা যায়নি।
স্থানীয় পুলিশের একজন মুখপাত্র বলেছেন, যেসব শহরে দাঙ্গা হয়েছে, সেগুলোর রাস্তায় পুলিশের স্পেশাল
টাস্ক ফোর্সের শতাধিক কমান্ডোকে মোতায়েন করা হয়েছে। গতকালের দাঙ্গায় এখনো পর্যন্ত দুজন নিহত হয়েছে এবং মুসলিমদের অনেক ঘর-বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এখনো পর্যন্ত দাঙ্গার ঘটনায় প্রায় ২৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।