টিডিএন বাংলা ডেস্ক : অসমের ডিটেনশন ক্যাম্পগুলি হচ্ছে হিটলারের কনসেনট্রেশন ক্যাম্প। অসমের ভাষিক সংখ্যালঘুদের ‘ডি’ তকমা দিয়ে ক্যাম্পে পুরো মানবাধিকার হরণ করা হচ্ছে। এর বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ গড়ে তুলতে হবে। ‘স্ফুরণ’ সাহিত্য পত্রিকা গোষ্ঠীর আয়োজনে ‘ডি-ভোটার, ডিটেনশন ক্যাম্প ও মানবাধিকার শীর্ষক এক আলোচনা সভায় এই মন্তব্য করেন বিশিষ্ট চিন্তাবিদ তথা নওদাঁ গার্লস কলেজের অবসরপ্রাপ্ত অধ্যাপক জ্যোতির্ময় জানা।

অসমের করিমগঞ্জের এক স্থানীয় আইন কলেজে অনুষ্ঠিত এই আলোচনা সভায় ভাষা সেনানী নিশীথরঞ্জন দাসের দুটি বই ‘সিলেট-কাছাড়ের অবিনশ্বর কমিউনিস্ট নেতৃত্ব’ ও ‘স্বাধীনতা সংগ্রামে বিপ্লব তীর্থ আন্দামান’ উন্মোচন করেন জ্যোতির্ময় জানা ও গুয়াহাটি থেকে প্রকাশিত দৈনিক গণ অধিকার পত্রিকার সহযোগী সম্পাদক জমশের আলি। আলোচনা সভায় উপস্থিত বক্তারা এনআরসি ও ডিটেনশন ক্যাম্পের বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভ উগরে দেন।