টিডিএন বাংলা ডেস্ক : বাবরী মসজিদ নিয়ে দীর্ঘ সংঘাতের পর সম্প্রতি তাজমহল নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি করে হিন্দু মহাসভা। এরপর তাদের কুনজরে পড়ে সম্রাট হুমায়ুনের সমাধি। এবার নতুন করে এসব মসজিদ ও কুতুব মিনার নিয়ে বিতর্ক তুলেছে তারা। বাবরীসহ পাঁচটি মসজিদ, তাজমহল ও কুতুব মিনারকে মন্দির বানানোর প্রস্তাব করেছে হিন্দু মহাসভা। হিন্দু মহাসভার আলিগড় শাখা থেকে প্রকাশিত এক ক্যালেন্ডারে এ প্রস্তাব করা হয়েছে।
আসন্ন নববর্ষ উপলক্ষে বানানো এই ক্যালেন্ডারে বেশ কয়েকটি স্থাপত্যের ছবি সংযুক্ত করা হয়েছে। ওইসব স্থাপনা ভারতে মুঘল শাসনামলে তৈরি। এর মধ্যে রয়েছে তাজমহলও। ক্যালেন্ডারে এসব স্থাপত্যকে ‘হিন্দু’ নাম দিয়ে পরিচিত করানো হয়েছে। এ বিষয়ে হিন্দু মহাসভার জাতীয় সম্পাদক পূজা শকুন পান্ডে জানান, হিন্দু নববর্ষের দিন যজ্ঞের আয়োজন করা হয়েছে। তার পরে সরকারের কাছে আবেদন করবেন ভারতকে হিন্দু রাষ্ট্র হিসেবে ঘোষণা করা হয়।
পূজা শকুন পান্ডে আরও বলেন, বিদেশি শক্তি বারবার ভারত আক্রমণ করে হিন্দু মন্দিরগুলোকে মসজিদে পরিণত করেছে। তারা নতুন নাম দিয়ে পরিচয় করিয়েছে বিশ্ব দরবারে। এবার সেই সব স্থাপত্য হিন্দুদের ফেরত নেয়ার সময় এসেছে। ক্যালেন্ডারে উল্লেখিত নাম দিয়েই এবার প্রতিষ্ঠিত করার দাবি জানিয়েছেন হিন্দু মহাসভার জাতীয় সম্পাদক। ক্যালেন্ডারে মধ্যপ্রদেশের কমল মওলা মসজিদের নাম পরিবর্তন করে ভোজাশালা, কাশীর জ্ঞানবাপী মসজিদের নাম বিশ্বনাথ মন্দির, জয়নপুরের আটালা মসজিদের নাম অটলা দেবী মন্দির, বাবরি মসজিদের নাম রাম জন্মভূমি, তাজমহলের নাম তেজো মহালয় মন্দির এবং দিল্লির কুতুব মিনানের বিষ্ণু স্তম্ভ করার প্রস্তাব করা হয়েছে।