টিডিএন বাংলা ডেস্ক : উত্তরপ্রদেশের আলীগড়ে বেদ প্রকাশ (২১) নামে এক হিন্দু যুবক ইসলামে ধর্মান্তরিত হয়েছেন। এ ঘটনায় ওই যুবকের শাস্তি চেয়ে রবিবার আলীগড়ের কারসি থানার বাইরে তার পরিবারের লোকেরা এবং উগ্রপন্থী কয়েকটি হিন্দু সংগঠনের সদস্যরা বিক্ষোভ করলে যুবককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

যুবকটির পরিবারের পক্ষ থেকে দায়ের করা অভিযোগে দাবি করা হয়েছে, ‘একজন মুসলিম মেয়েকে দিয়ে তাদের ছেলেকে প্রভাবিত করা হয়েছে এবং তাকে ইসলামে ধর্মান্তরিত হতে বাধ্য করা হয়েছে।’

যদিও যুবকটি বলেছেন যে তিনি সম্পূর্ণ নিজের ইচ্ছায় ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন। ইসলাম গ্রহনের পর তিনি নিজের নাম আদিল রেখেছেন।

পুলিশের ভাষ্য অনুযায়ী, আলীগড়ের নগলা পাটওয়ারী এলাকায় একটি ফার্নিচারের দোকানে কাজ করতে গিয়ে বেদ প্রকাশ ওরফে আদিল আট মাস আগে হিন্দুধর্ম ছেড়ে ইসলাম গ্রহণ করেন।

শনিবার সন্ধ্যায় একই এলাকায় বসবাসকারী একজন মুসলিম মেয়েকে বিয়ে করার ইচ্ছা প্রকাশ করলে তার ইসলাম গ্রহণের বিষয়টি প্রকাশ পায়।

আদিল ‘বারাউলা জাফরাবাদ’ এলাকার অধিবাসী। রবিবার কয়েকটি উগ্র হিন্দু সংগঠনের সদস্যদের নিয়ে তার পরিবারের সদস্যরা ওই মেয়েটির আত্মীয়দের বিরুদ্ধে ‘জোরপূর্বক ধর্মান্তরিত’ করার অভিযোগ দায়ের করে।

তবে, আদিল তার পরিবারের অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে বলেন, ‘কেউ আমাকে ধর্মান্তরিত হতে বাধ্য করেনি। আমি পুরোপুরি নিজের ইচ্ছায় ইসলাম গ্রহণ করেছি এবং এটা করা আমার ভুল ছিল- এমন কোনো অনুশোচনা আমি করছি না।’

আলিগড় পুলিশের সিনিয়র সুপারিনটেনডেন্ট (এসএসপি) অজয় কুমার সাহনি বলেন, ‘কোনো ধরনের চাপ ছাড়াই যুবকটি ধর্মান্তরিত হয়েছেন বলে আমাদেরকে বলেছেন। এমনকি ইসলাম ধর্মের নীতি অনুসরণ করে তিনি খৎনাও করেছেন।’

যুবকটির মা নেমবাতী দেবী বলেন, ‘ফার্নিচারের দোকানটিতে আমার ছেলের সঙ্গে ওয়াসিম নামে একজন মুসলিম যুবক কাজ করত। ওয়াসিম তাকে ধর্মান্তরিত হতে প্রভাবিত করে এবং তার বোনকে বিয়ে দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়।’

ইতোমধ্যে জোরপূর্বক ধর্মান্তরের অভিযোগে খুররম নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। পুলিশকে খুররাম বলেছেন, তার সঙ্গে আদিলের ১৫ দিন আগে পরিচয় হয়। এরপর আদিলকে কয়েকবার একসঙ্গে নামাজের প্রস্তাব দেন তিনি।

এদিকে, বিজেপি’র আলীগড় ইউনিটের সাধারণ সম্পাদক রেটা রাজপুত বলেছেন, ‘যারা এই যুবককে ধর্মান্তর করতে বাধ্য করেছে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।’

সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া