জুমা আর প্রজাতন্ত্র দিবস একই দিনে পড়ায় ঈদের আনন্দ হয়েছে মাদ্রাসা ও মিশনগুলিতে

0

নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, কলকাতা: একদিকে শুক্রবার জুমার দিন অন্যদিকে আজই সাধারণতন্ত্র দিবস। এই দুই খুশি এক হয়ে ঈদের মতো আনন্দিত মুসলিম সমাজ।এদিন সারাদিন স্বাধীনতা সংগ্রামীদের ইতিহাস চর্চা হয়। সেই সাথে দেশের বর্তমান অবস্থা নিয়েও কথা চলে একে অপরের মধ্যে।

সরকারি মাদ্রাসাতো বটেই দিনদিন খারেজী মাদ্রাসাতেও প্রজাতন্ত্র দিবসে নানা অনুষ্ঠান করার প্রবণতা বেড়েছে। গত কয়েক বছর স্বাধীনতা দিবস ও প্রজাতন্ত্র দিবস যেভাবে উদ্দীপনার সাথে পালন করেছে রাজ্যের বেসরকারি মাদ্রাসাগুলি এবারেও তার ব্যাতিক্রম হয়নি। এদিকে সরকারি মাদ্রাসাগুলিতে প্রজাতন্ত্র দিবস পালন নিয়ে বলতে গিয়ে মাদ্রাসা পর্ষদের সেক্রেটারি রেজানুল করিম বলেন, “আমরা প্রতিবারের মতো এবারেও যথাযোগ্য মর্যদার সাথে প্রজাতন্ত্র দিবস পালন করার নির্দেশ দিয়েছিলাম। আর এটা একটা স্বভাবিক বিষয়। মাদ্রাসা গুলিতে প্রজাতন্ত্র দিবস পালিত হয় স্বভাবিক ভাবেই।”

Advertisement
head_ads

এতদিন অনেক মাদ্রাসায় জাতীয় সংগীত গাওয়া, জাতীয় পতাকা তোলা ও সংক্ষিপ্ত অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে পালিত হতো। কিন্তু বেশ কিছু বছর থেকে লক্ষ্য করা যাচ্ছে, মাদ্রাসাগুলিতে এই দিনটিকে সামনে রেখে ব্যাপক কর্মসূচি নেওয়া হচ্ছে। খারেজী মাদ্রাসায় স্বাধীনতা সংগ্রামে আলেম, উলামা ও মুসলিমদের অবদান নিয়ে আলোচনা হয়, দেশের জন্য দুআ হয়েছে আজ।
হুগলির সীতাপুর ফুরফুরার দারুন্নেদা সিদ্দিকীয়া মাদ্রাসায় এবার পতাকা উত্তলন ছাড়াও বক্তব্য, ছাত্রদের নিয়ে দেশাত্মবোধক আবৃতি ও গজল পাঠ হয়েছে। ওই মাদ্রাসার সম্পাদক পীরজাদা তামিম উদ্দিন সিদ্দিকী টিডিএন বাংলাকে বলছিলেন, এইদিন আমাদের কাছে খুবই গুরুত্ব পূর্ণ, কারণ আজকের দিনে এমন একটি সংবিধান রচনা সম্পুর্ন হয়েছিল, যেটা পুরো পৃথিবীর সব থেকে বড় সংবিধান। আমরা এইদিনে নানা অনুষ্ঠান ছাড়াও দেশের গণতন্ত্র রক্ষা ও সার্বিক উন্নয়নের জন্য মহান আল্লাহর কাছে দোয়া করি।”

মুর্শিদাবাদের জামেয়া মোহাম্মাদিয়া দারুল উলুম লোহরপুর মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ নুরুল ইসলাম কাসেমী টিডিএন বাংলাকে বলেন, “শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটির দিন। তবুও আমরা পতাকা উত্তোলন করে অনুষ্ঠান করেছি। হিন্দু মুসলিম সকল ভারতবাসী ব্রিটিশের বিরুদ্ধে লড়াই করেছে।এখানে চার শতাধিক ছাত্রছাত্রীদের নিয়ে প্রজাতন্ত্র দিবস পালিত হয়। আসলে এইদিনটি আমাদের কাছে গর্বের দিন, আনন্দের দিন, ইতিহাসকে মনে করার দিন,নতুন করে দেশের জন্য কাজ করার প্রতিজ্ঞা করার দিন।”
শুধু বেসরকারি মাদ্রাসা নয়, মুসলিম পরিচালিত মিশনগুলিতেও প্রজাতন্ত্র দিবসে নানা অনুষ্ঠান হয়েছে।

head_ads