দলে দলে এয়ারটেল ত্যাগ করে অন্য কানেকশন বেছে নিচ্ছেন মুসলিমরা, সোশ্যাল সাইটে ট্রেন্ড করছে #BoycottAirtel

টিডিএন বাংলা ডেস্ক : গ্রাহকের বৈষম্যমূলক আচরণ থেকে এক মুসলিম কর্মীকে রক্ষা করতে ব্যর্থ হওয়ায় অনলাইনে ব্যাপক সমালোচনায় পড়েছে ভারতী এয়ারটেল।

এক নারী গ্রাহক সেবার জন্য কোম্পানিটির কাস্টমার কেয়ারে যোগাযোগ করলে এক মুসলিম কর্মী তার সেবা দিতে চান। কিন্তু ওই নারী একজন ‘হিন্দু প্রতিনিধি’ চান। তখন এই বৈষম্যের প্রতিবাদ না করে হিন্দু নামধারী এক কাস্টমার সেবাকর্মীর সঙ্গে ওই নারীকে যোগাযোগ করিয়ে দেয় এয়ারটেল।

এদিকে এ ধরনের বৈষম্য নিয়ে সমালোচনা হওয়ার পর এয়ারটেলের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, ধর্মের ভিত্তিতে তারা কোনো পার্থক্য করে না।

সোমবার পুজা সিং নামে এয়ারটেলের ওই নারী গ্রাহক এক টুইটার বার্তা দেয়ার পর বিতর্কটি শুরু হয়। তিনি লিখেন, মুসলিম কর্মীদের ‘কর্মনীতিতে’ তার কোনো ‘আস্থা নেই’। কারণ গ্রাহক সেবার ব্যাপারে কুরআনের আলাদা অবস্থান থাকতে পারে।

সঙ্গে সঙ্গেই তার এই টুইটারের প্রতিক্রিয়া জানাতে শুরু করে অনেকে। এতে ভাইরাল হয়ে যায় এই পোস্ট। এই ঘটনায় এয়ারটেলের নিন্দা জানিয়েছেন কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লাহ। তিনি এয়ারটেল ব্যবহার বন্ধ করে দেবেন বলেও জানিয়েছেন।

এদিকে সামাজিকমাধ্যমে সমালোচনা শুরু হওয়ার পর ভিন্ন বিবৃতি দিয়েছে এয়ারটেল। তা সত্ত্বেও পুজা সিংয়ের অনুরোধে কোম্পানিটির প্রাথমিক প্রতিক্রিয়ায় নিন্দা জানানো অব্যাহত আছে।

অনেকেই পুজাকে ‘গোঁড়া হিন্দু’ বলে টুইটারে ট্রল করেছে। এদিকে নিজের পক্ষে আরো শক্ত অবস্থান নিয়েছেন তিনি। বলেছেন, এই সমালোচনা তাকে প্রমাণ করে।

এদিকে এয়ারটেলের বিরোধিতা করে সোশ্যাল সাইটে ট্রেন্ড করছে ##BoycottAirtel। ইতিমধ্যেই এয়ারটেলের এহেন দ্বিচারিতার বিরুদ্ধে নিজেদের মোবাইল নাম্বার পোর্ট করানো শুরু করছে মুসলিম গ্রাহকেরা। তাঁদের কথায়, মুসলিম প্রতিনিধির যখন দরকার নেই, তাহলে মুসলিম গ্রাহকের কি কোনও দরকার আছে?