টিডিএন বাংলা ডেস্ক : আজ দেশজুড়ে পালিত হচ্ছে রঙের উৎসব হোলি। হিন্দু-মুসলিম নির্বিশেষে এই আনন্দ ভাগ করে নিচ্ছেন। এইবছর হোলির দিনটি পড়েছে মুসলিমদের সাপ্তাহিক ঈদের দিন শুক্রবারে। তাই শান্তি সম্প্রীতি বজায় রাখতে প্রশাসনকে গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ নিতে হচ্ছে। আলিগড়ের বহু পুরাতন সব্জী মান্ডী মসজিদ বিভিন্ন রকমের কাপড় দিয়ে কিছু সময়ের জন্য ঢেকে দেওয়া হয়েছে। প্রশাসনের তরফে জানানো হয়েছে সম্প্রীতি রক্ষার্থে এমনটা করা হয়েছে।
এর আগে মুখ্যমন্ত্রী যোগি আদিত্যনাথ প্রবীণ আধিকারিকদের হোলি শান্তিপূর্ণভাবে মেটানোর নির্দেশ দিয়েছিলেন। তিনি আরও বলেছিলেন যে, মসজিদে যাতে রঙ না লাগে তার জন্য মসজিদগুলি ঢেকে দেওয়া যেতে পারে। গত ২৭ ফেব্রুয়ারি ভিডিও কনফারেন্স করে হোলির বিষয়ে মিটিং করেছিলেন যোগি আদিত্যনাথ। উল্লেখ্য, গত বছর মসজিদে রঙ ছোড়া নিয়ে বেশকয়েক জায়গায় সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা বাধার উপক্রম হয়েছিল।
এবিষয়ে আলিগড়ের মুসলিনদের সঙ্গে আলোচনা করে পুলিশ প্রশাসন। প্রশাসনের এই পরামর্শ সাদরে মেনে নিয়ে মসজিদ ঢেকে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় সেখানকার মুসলিমরা। আলিগড়ে কর্মরত খালিদ হামিদ এবিষয়ে সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘এই সিদ্ধান্তে আমাদের কোনও আপত্তি নেই। কেননা শান্তি ও সম্প্রীতি রক্ষার্থে কখনও কখনও কিছু জিনিষ সাদরে গ্রহণ করা উচিত।’ আলিগড়ের মুসলিমদের এই উদারতায় দেশ তথা বিশ্বজুড়ে চলছে দেদার প্রশংসা।