জয়ের ছক্কা ধোনির, পাঞ্জাবের বিদায়ে প্লে-অফে রাজস্থান

0
স্পোর্টস ডেস্ক, টিডিএন বাংলা : রাজস্থান রয়্যালস আর কিংস ইলেভেন পাঞ্জাব তাকিয়েছিল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স আর দিল্লি ডেয়ারডেভিলসের ম্যাচের দিকে। ফিরোজ শাহ কোটলায় দিল্লির কাছে মুম্বাইর হারের পর প্লে-অফের দাবিদার থেকে অন্যতম ফেবারিটের বিদায়। দরজা খুলে গেলো রাজস্থান আর পাঞ্জাবের সামনে।
তবে রান রেট বেশি হওয়ায় রাজস্থানই এগিয়েছিল এ ক্ষেত্রে; কিন্তু শেষ পর্যন্ত রান রেটের হিসাবও প্রয়োজন হলো না। যেখানে চেন্নাইকে অন্তত ৫৩ রানে হারানোর প্রয়োজন ছিল পাঞ্জাবের। সেখানে উল্টো চেন্নাইর কাছে ৫ উইকেটে হেরে আইপিএলের একাদশতম আসর থেকেই বিদায় নিতে হলো প্রীতি জিনতার দল কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবকে।
ক্রিস গেইলকে কেন আইপিএলের নিলামে অন্য দলগুলো নিতে চায়নি তার গুড়ার্থ এবার বোঝা গেলো। এবারের আইপিএলের শুরুতে দুই ম্যাচ খেলতে পারেননি। পরের তিন ম্যাচে টানা তিনটি বড় ইনিংস খেলেছেন। একটি সেঞ্চুরিও করেছিলেন তিনি। সে পর্যন্তই। এরপর ঘুমিয়ে যায় ক্যারিবীয় দানবের ব্যাট। যে কারণে ভুগতে হয়েছে পাঞ্জাবকেও।
লিগের মাঝামাঝি এসে পাঞ্জাব যেভাবে উড়ছিল, তাতে তো প্রীতি জিনতা বলেও দিয়েছিলেন দল চ্যাম্পিয়ন হলে ক্রিকেটারদের জন্য স্পেশাল কিছু অপেক্ষা করছে। অথচ সেই দলটিই কি না বিদায় নিলো প্লে অফ থেকে।
পুনের মহারাষ্ট্র ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন মাঠে পাঞ্জাবের ছুড়ে দেয়া ১৫৪ রানের চ্যালেঞ্জ তাড়া করতে নেমে শুরুটা মোটেও ভালো হয়নি চেন্নাইর। আম্বাতি রাইডু আউট হয়ে যান ১ রান করে। ১৪ রান করে আউট হন ফ্যাফ ডু প্লেসি। স্যাম বিলিংস তো রানের খাতাই খুলতে পারেননি। হরভজন সিং আউট হয়ে যান ১৯ রান করে। দীপক চাহার ২০ বলে খেলে যান ৩৯ রানের ঝড়ো ইনিংস।
শেষ পর্যন্ত টিকে ছিলেন ওয়ানডাউনে নামা সুরেশ রায়না। ৪৮ বলে তিনি খেলেন ৬১ রানের ইনিংস। ৭ বলে ১৬ রান করেন মহেন্দ্র সিং ধোনি। শেষ পর্যন্ত ৫ বল হাতে রেখেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় চেন্নাই সুপার কিংস।
এই ম্যাচে চেন্নাই জিতলেও রান রেটের ব্যবধানে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়েছে সানরাইজার্স হায়দরাবাদই। চেন্নাই সুপার কিংস দ্বিতীয়। তিন নম্বরে রয়েছে কলকাতা নাইট রাইডার্স। চার নম্বরে রাজস্থান রয়্যালস। একই সঙ্গে শেষ হয়ে গেলো একাদশ আইপিএলের গ্রুপ পর্বের খেলা।
tdn_bangla_ads