স্পোর্টস ডেস্ক, টিডিএন বাংলা : উদ্বোধনী ম্যাচে রাশিয়ার প্রতিপক্ষ সৌদি আরব। শক্তিতে দুই দেশের পার্থক্য বেশ। এশিয়ার দেশটিরও একটা রেকর্ড হয়ে যাচ্ছে উদ্বোধনী ম্যাচ দিয়ে। এই প্রথম এশিয়ার কোনো দেশ খেলছে বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচ। ইতিহাসের অংশ হতে যাওয়া দিনটি কী রাঙিয়ে দিতে পারবে সৌদি আরব? বুধবার আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে সৌদি আরবের কোচ হুয়ান অ্যান্থনি পিজ্জি বলেছেন, তারা গ্যালারির দর্শকের উচ্ছ্বাসটা থামিয়ে দিতে চান।

সৌদি জিতলে তাদের রেকর্ড যেমন সমৃদ্ধ হবে তেমন ভেঙ্গে যাবে বিশ্বকাপের ৮৮ বছরের আরেকটি ইতিহাস। উদ্বোধনী ম্যাচে স্বাগতিকদের না হারার রেকর্ড হয়ে যাবে ধুলিষ্যাত। রাশিয়া কী পারবে স্বাগতিকদের সেই গৌরব ধরে রাখতে? জয় না হোক, অন্তত ড্র করতে পারলেও অটুট থাকে আগের আসরগুলোর রেকর্ড।


রাশিয়ার যে ১১ শহরে বিশ্বকাপ হবে তার মধ্যে প্রধান মস্কো। দেশটির রাজধানীর দুটি স্টেডিয়াম লুঝনিকি ও স্পার্টাক আছে ভেন্যুর তালিকায়। তবে সবার দৃষ্টি থাকবে লুঝনিকির দিকে। এখানে উদ্বোধন, এখানেই ফাইনাল। একটা ভেন্যুর ঐতিহ্য রাঙাতে আর কী লাগে।

কিন্তু রাশিয়ার মানুষ কী এ সব নিয়ে ভাবে? হয়তো ভাবে। কিন্তু ফুটবল নিয়ে তাদের আগ্রহের জায়গা যে আগের অবস্থানে নেই। এক সপ্তাহ হলো মস্কোতে আছি। কোনো রাশিয়ানকে দেখা যায়নি নিজ দেশের ফুটবল নিয়ে সেভাবে আগ্রহ প্রকাশ করতে। কেমন করতে পারে রাশিয়া? এমন প্রশ্নের উত্তরে বেশিরভাগ রাশিয়ানেরই এক উত্তর-‘নট গুড।’