প্রশান্ত দাস, টিডিএন বাংলা, মালদা: প্রতিবাদ করায় এক ব্যবসায়ীকে বেধড়ক মারধর ও তার বাম চোখ উপড়ে দেওয়ার চেষ্টার অভিযোগ উঠল প্রতিবেশীর বিরুদ্ধে। বাড়ির দরজার সামনে ধান রোদে দিয়েছিল প্রতিবেশী।  ফলে বাড়ি থেকে বেরোনো ও ঢোকা দুস্কর হয়ে গিয়েছিল।  শনিবার মালদা রতুয়া থানার সামসি এলাকায় ঘটনাটি ঘটেছে। ঘটনার তদন্তে নেমেছে শামসী ফাঁড়ির পুলিশ। আহত ব্যবসায়ী বর্তমানে মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। আহত ব্যবসায়ীর নাম হিমালয় চৌরাসিয়া।
জানা গিয়েছে চৌরাসিয়া পরিবার ২০০৫সালে বিহার থেকে ওই এলাকায় জায়গা কিনে বসবাস শুরু করে। এরপর থেকেই প্রতিবেশী সুচেন রবিদাস, অনিল রবিদাস সহ বেশ কয়েকজন তাদের ওই এলাকায় থাকতে না দেওয়ার জন্য অত্যাচার শুরু করে। বিষয়টি সামসী ফাঁড়িতে অভিযোগ জানালেও পুলিশ কোন ব্যবস্থা নেয়নি বলে অভিযোগ। এদিন হঠাৎ হিমালয় চৌরাসিয়ার বাড়ির সামনে ধান ফেলে শুকাতে শুরু করে। এমনকি চৌরাসিয়া পরিবারের মূল দরজা বন্ধো হয়ে যায়। হিমালয় চৌরাসিয়া সুচেনকে দরজার সামনে থেকে ধান সরাতে বলায় দুই জনের মধ্যে বচসা চরম আকার নেয়। অভিযোগ এরপর সুচেন রবিদাস দলবল নিয়ে হিমালয়ের ওপর চরাও হয়ে মারধর শুরু করে।

এমনকি ধারালো অস্ত্র দিয়ে বাম চোখ উপরে নেওয়ার চেষ্টা করে। ঘটনায় পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা ছুটে আসলে তাদেরকেও মারধর করা হয়। অবস্থা বেগতিক দেখে অভিযুক্তরা পালিয়ে যায়। গ্রামবাসীরা আহতদের উদ্ধার করে স্থানীয় স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যায় ও পরে মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। তাদের আরও অভিযোগ আহতর পক্ষ থেকে থানায় অভিযোগ জানাতে গেলে পুলিশ কোন ব্যবস্থা নেয়নি। বাধ্য হয়ে তারা পুলিশ সুপারের দ্বারস্থ হবে বলে জানিয়েছেন। ঘটনার পর সুচেন ও তার দলবল পলাতক।