লোকসংস্কৃতি বাঁচিয়ে রাখার এক অনন্য লড়াই

0

মিন্টু পতি, টিডিএন বাংলা, বাঁকুড়া : বাউল মানে মাটির গান, বাউল মানে মনের গান। যে গানের কোনো ধর্ম হয় না সে গান আজ অত্যাধুনিক ব্যান্ড মিউজিকের যুগে অস্তিত্বের লড়াই করছে যার হাত ধরে তিনি নির্মলেন্দু বাউল। গান যার কাছে সাধনা এই বাউলকে ভালোবেসেই গৃহত্যাগী হয়েছেন এই বৈরাগী। বাঁকুড়া দুর্গাপুর রাজ্য সড়কের পাশে মাকুড়গ্রামে আশ্রম রয়েছে নির্মলানন্দ মহারাজের। তার কাছে আশ্রম বাউল সাধনার মন্দির। তার গানের মধ্য দিয়ে উঠে আসে রাঙামাটির গন্ধ। পঁয়তাল্লিশ ঊর্ধ্ব এই মানুষটি নিজের হাতে রচনা করেছেন অনেক গান। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে গান গেয়েছেন এই মহান সাধক। পেয়েছেন অজস্র পুরষ্কার আর ধন্যবাদের বন্যা।


শুধুমাত্র বাউল সংগীত পরিবেশনের মধ্যেই সীমাবদ্ধ না থেকে সাধ্য মতো দুঃস্থ শিশু গরীব মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন এই মানুষটি। অর্থের মহো কোনোদিন বেঁধে রাখতে পারেনি তাকে।সামাজিক কুসংস্কার দূরীকরণের ক্ষেত্রেও এই মানুষটি মানুষকে সচেতন করায় অগ্রনী ভূমিকা পালন করেছেন। শান্তিনিকেতনের পৌষমেলা; জয়দেবের কেন্দুলির মেলার অন্যতম প্রধান বাউল গায়ক এই নির্মলানন্দ মহারাজ। তিনি অর্থ চান না, পুরষ্কার চান না, তার একটাই ইচ্ছা বাউল যেন যুগ যুগ ধরে মানুষের হৃদয়ে বেঁচে থাকে। এব্যাপারে প্রশাসন ও বাউল প্রেমীদের উদ্যোগ জরুরি যাতে একটি বাউল একাডেমি গঠন করা যায়। তিনি চান নবপ্রজন্ম লালন ফকির, ভবা পাগল, গোষ্ঠ গোপালের মতো দিক্পাল মানুষদের আরো বেশি করে জানুক।