নিম্নমানের খাবার দেওয়ার প্রতিবাদে বিক্ষোভের মুখে অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী

0

মিলটন মণ্ডল, টিডিএন বাংলা, করিমপুর : শূন্য থেকে পাঁচ বছর বয়সী খুদে শিশুদের পড়াশোনা এবং সেই সঙ্গে বাঁচ্চাদের পুষ্টির দিকে নজর রেখে পুষ্টিগুণ সম্পুর্ন খাবারের ব্যবস্থা করেছে সরকার। এদিকে নিম্নমানের খাবার দেওয়ার প্রতিবাদে বিক্ষোভের মুখে পড়লেন অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী রুপালি মন্ডল। ঘটনাটি ঘটেছে নদীয়ার থানারপাড়া থানার অন্তর্ভুক্ত দোগাছি বারিকপাড়ার ২৯৬ নং অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রে।


স্থানীয়দের অভিযোগ, এই অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রের রান্নায় কোনো রকম পুষ্টিগুণ থাকে না। চাল, ডাল হাড়ির তলায় পড়ে থাকে এবং পরিষ্কার জলের মধ্যদিয়ে সেগুলিকে পত্যক্ষ করা যায়। রান্নাঘরে কোনো রকম রানার আনাজপাতি থাকে না। স্থানীয়রা আরো অভিযোগ তোলেন যে, অঙ্গনওয়াড়ি দিদি সপ্তাহে দু’ দিন আসেন। খুদে পড়ুয়াদের কোনো রকম পড়াশোনা করাননা তিনি। এমনকি চক, ডাস্টার, বই পর্যন্ত নেই এই অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রে।

অন্যদিকে অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রের দিদিমণি রুপালি মন্ডল জানান, আমার বাড়ি কানায়খালী গ্রামে। বাড়ি থেকে অনেক সময় লাগে অঙ্গনওয়াড়ি কেন্দ্রে যেতে। আমি  তিন-চার দিন প্রেজেন্ট থাকার চেষ্টা করি। রান্নার পুষ্টিগুণ বিষয়ে জানতে চাইলে বলেন, আজকের রান্না খারাপ হয়েছে, প্রত্যেকদিন খারাপ হয় না। আমার মাথা ঠিক নেই। ঠিক বুঝতে পারিনি। এভাবেই ভুল স্বীকার করেন তিনি।


অপরদিকে ধোড়াদহ ২নং পঞ্চায়েত প্রধান তহমিনা বিবি মন্ডল বলেন, আমরা এরআগে গ্রামের মেম্বার নিয়ে রুপালি মন্ডলের সঙ্গে কথা বলেছি। রান্নারমান উন্নত করার এবং সেন্টারে উপস্থিতির হার বাড়ানোর পরামর্শ দিয়েছিলাম। তাতেও তিনি কর্ণপাত করেননি।