নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, কলকাতা:  ভোটার লিষ্ট সংশোধনের কাজে নির্বাচন কমিশনকে ইমাম, উলামায়ে কেরামগণ যাতে সহযোগিতা করেন এমনই আবেদন জানালেন মুসলিম মজলিশে মুশাওয়ারাত। ওই সংগঠনের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, ভোটার লিস্টে নাম তোলা বেশ গুরুত্বপূর্ণ কাজ।

অল ইন্ডিয়া মুসলিম মজলিশে মুশাওয়ারাতের পশ্চিমবঙ্গ শাখার সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আজিজ দিল্লিতে আছেন। সেখান থেকে তিনি সর্বস্তরের বিশেষ করে ইমাম, উলামায়, কেরাম এবং বিভিন্ন সংগঠন দায়িত্বশীলদের প্রতি নির্বাচন কমিশনের ভোটার লিষ্ট সংশোধনের কাজে সহযোগিতার আবেদন জানিয়েছেন। মুশাওয়ারাতের পক্ষ থেকে আব্দুল আজিজ টিডিএন বাংলাকে জানান,”১ সেপ্টেম্বর থেকে ভোটার লিষ্টে নতুন ভোটার সংযোজন করার কাজ শুরু হয়েছে। এবিষয়ে সাধারণ মানুষের দৃষ্টি আকর্ষণ করা দরকার। ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত এই পক্রিয়া চলবে। যাদের নাম বা ঠিকানা কোনও ভুল আছে, তাও সংশধন করার এটাই সময়। প্রত্যেক বুথে নির্দিষ্ট অফিসে ফর্ম পাওয়া যাবে। তা পুরুন করে সংশ্লিষ্ট অফিসারের নিকট জমা করতে হবে। যখন আপনাদের নাম লিষ্টে উঠে যাবে সঙ্গে সঙ্গে নিজের বা পরিচিতদের নাম ঠিক আছে কি না দেখে নিতে হবে। যদি নাম না আসে তাহলে ইলেকশন কমিশনের অফিসে আবার তা প্রেশ করতে হবে।”

মুশাওয়ারাত নেতা ইমাম সাহেবদের প্রতি আবেদন জানিয়ে বলেছেন,” এ ব্যাপারে জনগণকে সচেতন করার জন্য চেষ্টা অব্যাহত রাখেন, বিশেষ করে জুম্মার দিনে সাধারণ মানুষকে এবিষয়ে সতর্ক করে দেন। সম্ভব হলে মসজিদের বাইরে একটি আবেদন লিখে দেওয়া যেতে পারে। ইতিপূর্বে কর্ণাটকের অন্যান্য সমাজকর্মীদের সাথে মিলে এ-কাজকরার ফলে প্রায় পাঁচ লক্ষ নতুন ভোটারের নাম লিষ্টে সংযোজন করা সম্ভব হয়েছে।”

মুশাওয়ারাত সম্পাদক আরো বলেন, ভোটার লিষ্টে নাম ঠিক মত না থাকার কারনে আজ বিজেপি অসম থেকে ৪০ লাক্ষ লোকের নাম এনআরসির খসড়া লিষ্ট থেকে বাদ দিয়েছে। আগামীতে পশ্চিমবঙ্গেও অনুরূপ এনআরসি হতে চলেছে। সেই জন্য এটা আরও জরুরি হয়ে গেছে যে প্রত্যেক ভোটার আইডি কার্ড, আধার কার্ড, পাসপোর্ট, বাড়ির-জমির কাগজপত্র ঠিক করে নেন ও একটি ফাইলে যত্ন করে রাখেন। জামায়াতে ইসলামী হিন্দ, জমিয়তে উলেমায় হিন্দ সহ বিভিন্ন সংগঠন এবিষয়ে কাজ করছে। এই কাজে কোনও সমস্যা হলে ঐ সকল সংগঠনের সঙ্গে যোগাযোগ করা যেতে পারে। মিলী ইত্তহাদ পরিষদ, মুসলিম মজলিশ মুশাওয়ারাতের সহযোগিতা নেওয়া যেতে পারে।