শেষ মুহুর্তে টুপি, আতর, সুরমা কেনার ভিড় দোকানগুলোতে

0

তৌসিফ আহমেদ ফায়সাল , টিডিএন বাংলা, ইসলামপু : ঈদ মানুষের দুয়ারে এসে কড়া নাড়ছে। আর তাই জমে উঠেছে ঈদের বাজার। তার পরেও সবার কেনাকাটার সব কিছুই যেন বাকি রয়ে গিয়েছে। শেষ মুহুর্তে মনে পড়ে যায় সব চাইতে জরুরী জিনিসটির কথা। আর ছুটে চলা মার্কেট গুলোতে। ঈদের দিন নতুন পোশাকের সঙ্গে নতুন টুপি না হলে যেন চলেই না। ‘ঈদের সময় টুপির চাহিদা সবচেয়ে বেশি। ক্রেতাদের চাহিদার কথা চিন্তা করে বাহারি টুপি দোকানে রাখার চেষ্টা করছেন সব দোকানিরা। বিভিন্ন ধরনের টুপির মধ্যে গোল টুপির চাহিদা সবচেয়ে বেশি।

বাজারে বিভিন্ন বয়সী বাচ্চাদের জন্য রয়েছে ইন্ডিয়ান টুপি, সৌদি আরবি টুপি, চাইনিজ টুপি ইত্যাদি। হাতের কাজ করা গোল টুপির চাহিদা সবচেয়ে বেশি।

মুর্শিদাবাদের ইসলামপুরে ঈদের বাজার শেষ লগ্নে ভিড় জমে উঠেছে টুপি আর আতরের দোকানগুলোতে। বিভিন্ন বাজারে ঈদের নতুন পোশাক, উপহার এবং নানা ধরনের খাবারের উপকরণের দোকানগুলোতে ভিড়, সেই ভিড়ের সঙ্গে পাল্লা দিচ্ছে আতর এবং টুপির দোকান। মানুষ যাচ্ছেন সেসব দোকানগুলোতে আর পছন্দ মতো সংগ্রহ করছেন।

আতরের দোকানগুলোর মধ্যে সাজানো শয়ে শয়ে শিশিতে রাখা আছে বিভিন্ন ধরনের আতর। কোনটায় ভরা আছে গোলাপ, কোনটায় জেসমিন, কোনটায় হেনার সুগন্ধ। টুপির দোকানেও ভিড় রয়েছে মানুষের। কোন টুপিতে কাজ বেশি, সে টুপিতে আগ্রহ বেশি। এর মধ্যে কিছু এসেছে বাংলাদেশ থেকে। কিছু এসেছে আরব থেকে আর কিছু ভারতের বিভিন্ন রাজ্য থেকে। এদিকে, আতরে আগ্রহ গন্ধভেদে। কোনো আতরের মধ্যে মেশানো হয়েছে একাধিক গাছের অংশ, গাছের ছাল, ফুলের রেনু।

তবে আজকের আধুনিক পারফিউম, ডিওড্রেন্টের যুগেও কীভাবে টিকে আছে আতর! বিক্রেতারা জানালেন, ধর্মের বিষয় যেমন এক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ঠিক তেমননি গুরুত্বপূর্ণ আতরের ঐতিহ্য। যা যুগ যুগ ধরে আতরকে টিকিয়ে রেখেছে আধুনিক সুগন্ধির সঙ্গে পাল্লা দিয়ে।

পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় তৈরি হওয়া টুপিগুলোর দাম অপেক্ষাকৃত সস্তা। আর এগুলো পছন্দসই কারুকার্য করা ফলে ক্রেতাদের কাছে প্রথম থেকেই এর চাহিদা যথেষ্ট। বিক্রেতাও খুশি এই বছর ঈদের আগের ব্যবসাতে। আর এই খুশিটাই জুড়ে থাকবে গোটা উৎসব জুড়ে।