ঈদের আনন্দ নয়, পরীক্ষা নিয়েই ব্যস্ত কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের মুসলিম পড়ুয়ারা!

0

রেবাউল মন্ডল, টিডিএন বাংলা, কলকাতা : যদি কাল ঈদ হয় তবে ঈদ ছেড়ে পরীক্ষাতেই বসতে হবে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের মুসলিম পড়ুয়াদের। যদিও সবটাই নির্ভর করছে আজকের রাতের চাঁদের উপর।

টানা একমাস নির্জলা উপবাসের পর আসে মুসলিম সম্প্রদায়ের খুশির ঈদ। অনেকেই কর্মসূত্রে বাইরে থাকেন। খুশির দিনে অংশ নিতে সকলেই এখন বাড়ির টানে। কিন্তু এবার ঈদে মায়ের হাতের আর লাচ্চা সেমাই খাওয়া হচ্ছে না কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের মুসলিম পড়ুয়াদের। কেননা ঈদের দিনে বিশ্ববিদ্যালয়ে বিএ বিএসসির পার্ট টু-র জেনেরেল পেপারের পরীক্ষা। আর যেকারণেই ঈদের বাৎসরিক আনন্দ থেকে বঞ্চিত হতে হচ্ছে মুসলিম পরীক্ষার্থীদের। বিশ্ববিদ্যালয়ের রুটিনে দেখা যাচ্ছে ঐ বিভাগের পরীক্ষা শুরু হয়েছে ৮ই জুন চলবে ২৮ শে জুন পর্যন্ত।

এনিয়ে পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকরা রীতিমত হতাশ। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন শিক্ষানুরাগীরাও। কেননা অনেক দূর দুরান্তের জেলা থেকে পড়ুয়ারা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশুনা করে। বাড়ি থেকে যাতায়াত করা তাদের পক্ষে সম্ভব হয় না। তাই কলকাতা সংলগ্নই বিভিন্ন হোস্টেল মেসেই থাকতে হয় পড়ুয়াদের। আর তাই ঈদের আগে ও পরে পরীক্ষা থাকায় তাদের আর পরিবারের সাথে ঈদ কাটানোর সুযোগ হচ্ছে না এবার।

সরকারি বিজ্ঞপ্তিতে কেবলমাত্র ১৬ই জুন একদিন ঈদের ছুটি ঘোষিত থাকলেও আগের দিন ১৫ জুন শুক্রবার ঈদ হবার সম্ভবনাও যথেষ্ট রয়েছে। কেননা আগের রাতে চাঁদ দেখেই পরের দিন ঈদ হয় মুসলিম সম্প্রদায়ের। আর ঐ দিনেই  ভূগোল, বায়োলজি, সাইকোলজি, মাইক্রো বায়োলজি সহ জার্নালিজম এন্ড মাস কমিউনিকেশনের বিএ বিএসসির পার্ট টু-র জেনেরেল পরীক্ষার দিন নির্ধারিত। এক পরীক্ষার্থীতো অভিমানের সুরে হালকা হেসে টিডিএন বাংলাকে বলেই ফেললেন, আমাদের আবার ঈদের ছুটি!

প্রতি বছরই বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ঈদের আগে ও পরের দিন পরীক্ষা থাকেই। অনেক সময় সরকারী একদিনের ছুটিতে ঈদ না হয়ে চাঁদ অনুযায়ী পরীক্ষার দিনেও ঈদ পড়ে যায়। এক্ষেত্রে মুসলিম পড়ুয়াদের দাবি ঈদের আগে ও পরের দিনে কোন রকম পরীক্ষা যেন কোন দফতরই না রাখে। বিভিন্ন পরীক্ষা ঈদের আগে পরে এমনকি ঈদের দিনেও হয়ে থাকে বলে অভিযোগ তাদের।

tdn_bangla_ads