চাকরি হারানোর আশঙ্কায় চুক্তিতে নিয়োগ কম্পিউটার প্রশিক্ষকেরা

0
হান্নান সেখ, টিডিএন বাংলা, মুর্শিদাবাদ: চলতি বছরের ২৮শে ফেব্রুয়ারি চুক্তির মেয়াদ শেষ হতে চলায় রাজ্যের বিভিন্ন সরকারি ও সরকার পোষিত বিদ্যালয়ের কম্পিউটার শিক্ষক-শিক্ষিকারা চাকরি হারানোর আশঙ্কায় রয়েছেন।
২০০৩ সালে আইসিটি (ইনফরমেশন কমিউনিকেশন টেকনোলজি অ্যাট স্কুল) প্রকল্পে প্রথম দফায় সারা পশ্চিমবঙ্গে মোট ৮০০জন কম্পিউটার শিক্ষক-শিক্ষিকা নিয়োগ হয় বিভিন্ন বিদ্যালয়ে। এর মধ্যে মুর্শিদাবাদ জেলায় ১৪৫ জন নিয়োগ হন। পরবর্তী ধাপে ধাপে আরো শিক্ষক-শিক্ষিকা নিয়োগ হয় এই প্রকল্পে। বর্তমানে এই প্রকল্পে মোট  ৬ হাজার ৫০০ শিক্ষক-শিক্ষিকা চাকরি করছেন রাজ্যের বিভিন্ন বিদ্যালয়ে। মাসে ৪৬৮০ টাকা করে সাম্মানিক ভাতা পান এই প্রশিক্ষকেরা।
চলতি মাসের ২৮ তারিখ প্রথম দফায় নিযুক্ত প্রশিক্ষকদের চুক্তির মেয়াদ শেষ হতে চলেছে। বারবার আবেদন করেও তাদের কাজের মেয়াদ বাড়ার কোনো আশ্বাস পাননি বলে অভিযোগ।
মুর্শিদাবাদের সুলতানপুর আলিয়া সিনিয়র মাদ্রাসার কম্পিউটার প্রশিক্ষক মোঃ সামাইল ইসলাম জানান, “আমরা দীর্ঘদিন ধরে এই কাজ নিষ্ঠার সঙ্গে করে আসছি। এখন আমাদের চাকরি চলে গেলে আমরা খাবো কি? এবারতো দেখছি পথে নামতে হবে হবে।”
এখন পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গের ৩ হাজার ৯১৪ টি সরকারি ও সরকার পোষিত বিদ্যালয়ে এই প্রকল্প রূপায়িত হওয়ায় এখানকার ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে কম্পিউটার শিক্ষার হার যথার্থই বেশি। এই প্রকল্প রূপায়িত হওয়ার সংখ্যার দিক থেকে পশ্চিমবঙ্গের স্থান সারা দেশে প্রথম তিনে আছে।কেন্দ্রীয় রিপোর্ট মোতাবেক বিদ্যালয়ে কম্পিউটার প্রশিক্ষণে পশ্চিমবঙ্গের সাফল্যের বর্তমান হার ৭৮.১৯ শতাংশ। স্বাভাবিক ভাবেই এই ক্ষেত্রে কম্পিউটার প্রশিক্ষকদের অবদান অনস্বীকার্য।
এমতাবস্থায় কম্পিউটার প্রশিক্ষকদের সংগঠন ‘ওয়েস্ট বেঙ্গল স্কুল কম্পিউটার টিচার্স ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন’ তাদের বিভিন্ন দাবি দাওয়াকে সামনে রেখে বৃহত্তর আন্দোলনে নামছে।