ডোমকলে গম নস্ট করতে গিয়ে প্রশাসনের ৫ টি গাড়ি ভাঙ্গচুর, এলাকায় উত্তেজনা

0

কিবরিয়া আনসারী, টিডিএন বাংলা, মুর্শিদাবাদ : দু’বছরের জন্য গম চাষ বন্ধ নদীয়া ও মুর্শিদাবাদ জেলায়। প্রশাসনের নির্দেশ অমান্য করে জেলার বিভিন্ন ব্লকে অবাধেই চলছে গম চাষ। গম চাষ ঠেকাতে মরিয়া জেলা প্রশাসন। তারপরেও  মুর্শিদাবাদ জেলার ডোমকলে একাধিক এলাকায় অবাধেই চলছে গম চাষ। এই গম চাষ ঠেকাতে তৎপর হয়েছে প্রশাসনের কর্তারা।


এদিন ডোমকল ব্লকের বাগডাঙ্গা ফিরোজপুর মধ্যগ্রামে গম নস্ট করতে যায় প্রশাসনের কর্তারা। আর তখনি আক্রমন ধেয়ে আসে প্রশাসনের কর্তাদের উপর। এদিন গম চাষ বন্ধ করতে গিয়ে বিপদের সম্মুখীন হয় প্রশাসন। অভিযোগ লাঠি, হেসো, বোম নিয়ে চড়াও হয় স্থানীয়রা। পুলিশের ৫ টা গাড়ি ভাঙ্গচুর হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে আজ ১০ টা নাগাদ ডোমকলের বাগডাঙ্গা ফিরোজপুর মধ্যগ্রামে।

Advertisement
head_ads

প্রশাসন সূত্রে খবর, ডোমকলের বিভিন্ন এলাকায় নির্দেশ অমান্য করে অবাধে চলছে গম চাষ। এই সব গম চাষ বন্ধ করতে মাঠে নেমেছে প্রশাসনের কর্তারা। একাধিক জায়গায়তেই বিপদের সম্মুখীন হচ্ছে প্রশাসনের কর্তারা।

এদিন কৃষি দপ্তরে খবর আসে বাগডাঙ্গায় অবাধে চলছে গম চাষ। তাই এদিন ডোমকল ব্লক প্রশাসন সহ একাধিক পুলিশ কর্মীদের নিয়ে কৃষি আধিকারীক সহ বিডিও বাগডাঙ্গা ফিরোজপুর মধ্যগ্রামে পৌছায়। গ্রামের মাঠে গিয়ে চক্ষু চড়ক গাছ প্রশাসনের। একাধিক জমিতে গম দেখে পুলিশ কর্মী ও কৃষি দপ্তরের লোকেদের গম নস্ট করার নির্দেশ দেয় কৃষি আধিকারীক। তারপরি আক্রমন ধেয়ে আসে তাদের উপর। স্থানীয় বাসিন্দারা একজোট হয়ে প্রশাসনের কর্তাদের উপর আক্রমন চালাই বলে অভিযোগ। পুলিশের ৫ টি গাড়ি ভাঙ্গচুর হয়েছে। তারপরি ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে আসে প্রশাসনের কর্তারা।

স্থানীয় বাসিন্দা করিমুল হক বলেন, আরও আগে কেনো গম নস্ট করতে আসেনি প্রশাসন। আজ আমরা মাথার ঘাম পায়ে ফেলে এই গম কে বড়ো করেছি। আর কিছু দিনের মধ্যেই গম পাকতে শুরু করবে। আর এখন এই গম নস্ট করলে আমরা কি খাবো। আমাদের ক্ষতি পূরণ কে দেবে।

তিনি আরও অভিযোগ করেন, গম নষ্ট করতে বাধা দিয় আমরা।তারপরি পুলিশ আমাদের উপর লাঠি চালাই। আমাদের একজন মহিলা আহত হয়েছে।

অবশ্য এই অভিযোগ অস্বীকার করে ডোমকলের আইসি নিহার রঞ্জন রায় বলেন, আমরা কারও উপর লাঠি চার্জ করিনি। বরং আমাদের উপর চড়াও হয় স্থানীয় বাসিন্দারা। আমাদের পুলিশ কর্মীদের ইট, কাঠ ছোড়া হয়। আমাদের ৫ টা গাড়ি ভেঙ্গে দেওয়া হয়েছে। আমরা লাঠি চার্জ করলে গম নস্ট করে তবেই আসতাম।

জেলা উপ কৃষি আধিকারীক তাপস কুমার কুন্ডু বলেন, আজ বাগডাঙ্গায় আমাদের অতিরিক্ত জেলা শাসক, বিডিও, কে পি এস, কৃষি আধিকারীক, পুলিশ সবাই মিলে বাগডাঙ্গায় গিয়েছিল গম নস্ট করার জন্য। সেখানে গিয়ে আমাদের আধিকারীকদের বিপদের সম্মুখীন হতে হয়। কিছুটা গম নস্ট করার পর স্থানীয়রা আমাদের উপর চড়াও হয়। পরিস্থিতি খারাপ হওয়ার কারণে আমরা কাজ বন্ধ করতে বাধ্য হয় এবং আমাদের চলে আসতে হয়। স্থানীয়দের অভিযোগ তারা গম নস্ট করতে দেবে না। এই কাজ আমাদের বন্ধ হবে না। আজকের ঘটনা আমি উদ্ধর্তন কতৃপক্ষ কে জানাবো। তারপর তারা যে ভাবে নির্দেশ দেবে সেই মোতাবেক কাজ করব।

head_ads