জলঙ্গীতে গ্যাস সিলিন্ডার ফেঁটে একই পরিবারের  মৃত তিন, শোকের ছায়া 

0

কিবরিয়া আনসারী, টিডিএন বাংলা, মুর্শিদাবাদ: গ্যাসের সিলিন্ডার ফেঁটে মৃত্যু হল একই পরিবারের তিন জনের। এই ঘটনাই এলাকায় ব্যাপক শোকের ছায়া নেমে আসে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল রাত্রি দশটা নাগাদ জলঙ্গী থানার এনাতপুর গ্রামে। মৃতের নাম জাকির সেখ (৩০), ভাইপো সাইদ মন্ডল (১০) ও ভাগ্নে সামিম মন্ডল (৯)। স্থানীয়দের প্রচেষ্টাই আগুন নিয়ন্ত্রণে আসলেও বাঁচানো যায়নি তাদের।


স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, অন্ধকারাচ্ছন ঘরে মোমবাতি জ্বালিয়ে জাকির সেখ ভাইপো ও ভাগ্নে কে নিয়ে রাতে ঘুমাতে যান চালার ঘরে। খাটের নিচেই রাখা ছিল গ্যাস সিলিন্ডার। আর তার পাশেই জ্বালিয়ে রাখা হয়েছিল মোমবাতি। অধীর ঘুমে ক্লান্ত জাকির বুঝতে পারেনি মোমবাতি থেকেই আগুন ছড়িয়ে পড়েছে ঘরে। আগুন ছড়িয়ে পড়তেই ঘরের ভেতরেই ব্লাস্ট করে সিলিন্ডার। বিকট শব্দে ঘুম ভাঙ্গে স্থানীয়দের। ছুটে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে পারলেও বাঁচানো যায়নি তাদের। স্থানীয়দের অনুমান ঘরের জানালা, দরজা বন্ধ না থাকলে হইত তারা বেঁচে যেত।


মৃতের আত্মীয় মঞ্জিরা বিবি বলেন, রাতে ঘুমন্ত অবস্থায় ছিলাম। বিকট শব্দে ঘুম ভেঙ্গে যায়। ছুটে এসে দেখি আগুনের লেলিহান শিখা দাও দাও করে জ্বলছে। স্থানীয়দের ঘন্টা খানেকের প্রচেষ্টাই আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। আগুন নেভার পর ঘরে ঢুকে দেখি তিনজন মৃত অবস্থাই লুটিয়ে পড়ে রয়েছে। তবে তাদের শরীরের কিছুই নেই। সব পুড়ে ছায় হয়ে গিয়েছে।


পরে জলঙ্গী থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মৃত দেহ গুলিকে উদ্ধার করে এবং মৃতদেহ গুলিকে ময়নাতদন্তের জন্য মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজে পাঠানো হয়।

জলঙ্গীর বিডিও সাধন দেবনাথ জানিয়েছেন, মৃতের পরিবার গুলিকে ২ লক্ষ করে টাকা দেওয়া হবে। আমরা জেলা থেকে চেক পেলেই তাদের হাতে টাকা তুলে দেব। বর্তমানে তাদের মাথা গোজার জন্য ত্রিপল, খাবারের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এখন মানুষের মধ্যে আর আতঙ্ক নেই।