নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, কলকাতা: সমাজের একটি শ্রেণী যদি পিছিয়ে থাকে তবে সেটা উন্নয়ন নয়। শনিবার পার্কসার্কাস ময়দানে মিলন মেলা উৎসব ২০১৮ এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এসে এই মন্তব্য করলেন পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। এদিন সংখ্যালঘুদের ওই মেলায় তিনি বলেন,”সমাজের একটি শ্রেণী যদি পিছিয়ে থাকে তবে সেটা উন্নয়ন নয়। তাই সংখ্যালঘু মন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় আজ সকলকে নিয়ে উন্নয়ন করে যাচ্ছে। এই সরকার সমতার সরকার। সংখ্যালঘু মুসলিম, শিখ, খ্রিস্টান, বৌদ্ধ সকলের জন্য এই সরকার। সকলের অভাব অভিযোগ শুনে সব সমস্যার সমাধান করার সরকার এটি।”

রাজ্যের ওই মন্ত্রী আরও বলেন,”এই মেলা আগে মিলন মেলা ছিল। কিন্তু মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সরকার আসার পর এই মেলা মিলন উৎসবে পরিণত হয়েছে।”

মিলন উৎসবের স্বাগত ভাষণ দেন মাইনোরিটি ডেভলপমেন্ট এন্ড ফিন্যান্স করপোরেশনের চেয়ারম্যান ডঃ পিবি সেলিম।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিপর্যয় মুকাবিলা মন্ত্রী জাভেদ আহমেদ খান, পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, সংখ্যালঘু প্রতিমন্ত্রী গিয়াসউদ্দিন মোল্লা, সাংসদ আহমদ হাসান ইমরান, সাংসদ নাদিমুল হক, বিধায়ক ফিরদৌসি বেগম, ডঃ বিবেক কুমার প্রমুখ।
সংখ্যালঘুদের জন্য মমতা বন্দোপাধ্যায় কী কাজ করছেন তা বলতে গিয়ে এদিন পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বলেন,”বিভেদের রাজনীতি যারা করেন তাদের বাংলায় জায়গা নেই। সমাজের যারা পিছিয়ে পড়া তাদের সমানভাবে তুলে ধরা উচিত।”

এদিন বক্তারা বাংলার সম্প্রীতির ইতিহাস ও ঐক্যকে রক্ষা করার আবেদন জানান।
এদিকে ১০ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হওয়া পার্কসার্কাসের মেলা চলবে ১৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত। মিলন উৎসবে বিভিন্ন বিষয়ে ৯৯টি স্টল থাকছে। খ্রিস্টান, মুসলিম, বৌদ্ধ, জৈন প্রভৃতি সম্প্রদায়ের লোকেরা আলাদা আলাদা দিনে নিজেদের সাংষ্কৃতিক অনুষ্ঠানও করতে পারবেন।