নির্মল বাংলার কাজ খতিয়ে দেখতে গিয়ে আক্রান্ত প্রশাসনিক আধিকারিকগন

0
কিবরিয়া আনসারী, টিডিএন বাংলা, মুর্শিদাবাদ: নির্মল বাংলার শৌচাগার তৈরীর কাজ খতিয়ে দেখতে গিয়ে প্রাণে মারার হাত থেকে রক্ষা পেল প্রশাসনির কর্তা ও পঞ্চায়েত প্রধান। ঘটনাটি ঘটেছে আজ সকাল আট টা নাগাদ ডোমকল থানার মধুরকুল পঞ্চায়েতের সুলতানপুর এলাকায়। এই ঘটনার পরে লিখিত আকারে স্থানীয় বাসিন্দার বিরুদ্ধে ডোমকল থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে পঞ্চায়েত প্রধান।
    স্থানীয় সূত্রে খবর, পঞ্চায়েত প্রধান ও বিডিও অফিসের কিছু অফিসার আজ সকালে গ্রামে আসেন নির্মল বাংলার কাজ খতিয়ে দেখতে। তারপর স্থানীয় বাসিন্দা সিরাজুল ইসলামের বাড়ি যায় কর্তারা। তার বাড়িতে গিয়ে দেখে কোনো শৌচাগার নেই। আর থাকলেও তা ব্যবহার যোগ্য নয়। তাই প্রশাসনের কর্তা তাকে বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে শৌচাগার তৈরীর নির্দেশ দিলে সে রেগে যায়। সিরাজুল বাড়ি থেকে রড নিয়ে কর্তাদের মারধর করতে ধেয়ে আসে। এমনকি অকথ্য ভাষায় গালাগালি করেন।
    মধুরকুল পঞ্চায়েত প্রধানের ফিরদৌসি বেগমের অভিযোগ, আমি বিডিও সাহেব এবং ডিএম সাহেবের নির্দেশে প্রশাসনিক কর্তাদের নিয়ে নির্মল বাংলার কাজ খতিয়ে দেখতে সুলতানপুর যায়। তখন সিরাজুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তির বাড়ি ঢুকি। তার বাড়িতে শৌচাগার নেই বললেই চলে। যেটি আছে তাও ব্যবহার যোগ্য নয়। তাই আমরা তাকে ভালো শৌচাগার করার কথা বলি। তারপর তিনি হঠাৎ রেগে গিয়ে আমাদের উপর রড দিয়ে প্রাণে মারার চেষ্টা করেন। আক্রমন করেন। আমাকে রড নিয়ে ধেয়ে মারতে আসলে প্রানে বাঁচায় প্রশাসনের কর্তারা। তিনি জানান, আমাকে এবং প্রশাসনিক কর্তাদের মারধর করা হয়েছে। অকথ্য ভাষায় গালাগালিও করা হয়েছে।  আমি অভিযুক্তের নামে ডোমকল থানায় লিখিত অভিযোগ জানিয়েছি। আমি চাই তারা আইন অনুযায়ী শাস্তি পাক।
head_ads