ফারাক্কায় বিয়ে বাড়িতে ঢুকলো গাড়ি- মৃত ১, বন্ধ বিয়ে, পরে পুলিশের উদ্যোগে জোড়া লাগলো চার হাত

0

নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, মুর্শিদাবাদ :  ঠিক হয়েছিল মঙ্গলবার রাতে হবে পাত্রী সম্পা মণ্ডলের বিয়ে। সেই মত আয়োজন সম্পূর্ণ। বিয়ের আগে  সেই মত সোমবার রাতে নিজেদের বাড়িতে ছিল পারিবারিক মারওয়া পুজা।  ফরাক্কা থানার বাহাদুরপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের সুদনা গ্রামে উপস্থিত হয়েছিল প্রচুর আত্মীয় স্বজন। পুজো সেরে প্রসাদ খেয়ে সবাই বাড়ির সামনে জমায়েত হয়েছেন। উদ্দেশ্য সকলে বাড়ি ফিরবেন। ঠিক সেই মুহূর্তে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে হুড় মুড়িয়ে ভীড়ের মধ্যে ঢুকে পড়ে  ঝাড়খণ্ড থেকে আসা একটি লরি। লরির ধাক্কায় ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হল লতা মণ্ডল (৫৫ )নামে এক মহিলার। দুর্ঘটনায় গুরুতর জখম হয়ে মালদা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি মল্লিকা মণ্ডল ও মনোরথ মন্ডল নামে আরও দু’জন। তাঁদের অবস্থা আশঙ্কাজনক। ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যপক উত্তেজনা ছড়ায় এলাকায় ।

এদিকে ঘটনার জেরে মঙ্গলবার রাতে আর বিয়ে দিতে রাজি হচ্ছিলো না পাত্র পক্ষ কিন্তু ভেস্তে যেতে বসা বিয়ের দায়িত্ব নিয়ে নজীর গড়লো ফারাক্কা থানার পুলিশ। ফরাক্কা থানার আইসি উদয়শঙ্কর ঘোষ, সঙ্গী বিডিও কেশাং ধেনডুপ ভুটিয়া নিজে উদ্যোগী হয়ে রাতেই তাঁরা পৌঁছে গিয়েছিলেন ঘটনাস্থলে। ততক্ষণে কয়েক জন আহতদের নিয়ে  রওনা দিয়েছেন হাসপাতালে। মৃতদেহ তুলে ময়নাতদন্তের জন্য থানায় পাঠানো হয়েছে। বিয়েবাড়ির হইচই বদলে গিয়েছে কান্নায়। সেখানে গিয়ে আইসি কনের বাবা-মাকে প্রস্তাব দেন, বিয়ের দায়িত্ব নেওয়ার জন্য। প্রথমে রাজি না হলেও শেষ অবধি পুলিশ কে সম্মতি দেয় পাত্রী পক্ষ। মঙ্গলবার ফরাক্কা বাসস্ট্যান্ড লাগোয়া পথের সাথী নামক এক অনুষ্ঠান বাড়িতে বিয়ে সম্পন্ন হয়।  সুদনা থেকে দুপুরে নিয়ে আসা হয় পাত্রী শম্পা, তার মা-বাবা, ভাই-দিদিদের। রান্নার ব্যবস্থাও করা হয়। ওদিক থেকে একশো লোককে নিয়ে বরযাত্রীও  সন্ধেতেই এসে হাজির হয়ে যান। নেমন্তন্ন করা হয়েছিলো বাহাদুরপুর গির্জার পাদ্রি, স্থানীয় মসজিদের ইমামদেরও। রাতেই আনন্দ  উচ্ছাসের মধ্য দিয়েই সম্পন্ন হয় বিয়ে। পুলিশের এই উদ্যোগে খুশি ব্লকের বাসিন্দারা।