সাম্য ও সম্প্রীতির প্রতীক হজরত মহম্মদ (সাঃ) শীর্ষক আলোচনা সভা সলুয়া গোপালপুরে

0

নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, কলকাতা : সাম্য ও সম্প্রীতির প্রতীক হজরত মহম্মদ (সাঃ) শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হলো এয়ারপোর্টের সলুয়া গোপালপুর মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে। শনিবার সন্ধ্যার পর থেকে এই অনুষ্ঠান হয়। এদিনের সভায় সভাপতিত্ব করেন জামায়াতে ইসলামী হিন্দের রাজ্য সভাপতি মুহাম্মদ নুরুদ্দিন। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশনের রাজ্য সম্পাদক মুহাম্মদ কামরুজ্জামান, দলিত বহুজন সলিডারিটি মুভমেন্টসের নেতা শরদিন্দু উদ্দীপন, বিধাননগর পৌরসভার চেয়ারম্যান তাপস চ্যাটার্জি, স্থানীয় মসজিদের ইমাম সাহার আলি প্রমুখ।

সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশনের রাজ্য সম্পাদক মুহাম্মদ কামরুজ্জামান বক্তব্য রাখতে গিয়ে বলেন, “আজকের দিনে অসাম্য, অমানবিক, বিশৃঙ্খল ঘটনা ঘটে চলেছে অহরহ, রাজনৈতিক কারণে হিন্দু-মুসলিমদের মধ্যে অসাম্যতা সৃষ্টি করতে চাইছে, শুধু মাত্র মুসলমানদের হাতে শাসন ক্ষমতা নেই বলেই অসাম্যতা সৃষ্টি করতে পারছেন। ইসলামী রাষ্ট্রে কোনও দিন সংখ্যালঘুদের আখলাকের মতো খুন হতে হয়না।”

বিধাননগর পুরনিগমের ডেপুটি মেয়ের তাপস চ্যাটার্জী বলেন, “সাম্যের মধ্যেই সম্প্রীতি বজায় থাকে। ইসলাম সাম্যের নীতি নিয়ে পৃথিবীতে মাথা উঁচু করে আছে। ইসলামের জন্য গর্ব হয়।”
জামায়াতে ইসলামি হিন্দের রাজ্য সভাপতি মুহাম্মদ নুরুদ্দিন সমাপ্তি ভাষণে বলেন, “ইসলাম বলছে, সব মানুষ সমান। ভারসাম্যপূর্ন বৈচিত্রের মধ্যেই সাম্য নিহিত। মুসলিমদের ব্যবহার, চরিত্র দিয়ে মন জয় করে নিতে হবে। নৈতিক শক্তিই আসল শক্তি।”
এদিন পুরুষের পাশাপাশি বহু মহিলাও মুহাম্মদ (সাঃ) সম্পর্কে আলোচনা শুনতে এসেছিলেন।গোপালপুর ইস্পোর্টিং ক্লাবের উদ্যোগে আয়োজিত ওই শান্তি সভা শেষ হয় জামায়াতে ইসলামী হিন্দের উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলা সভাপতি জুলফিকার আলির দুয়ার মাধ্যমে।