মুর্শিদাবাদে জাল সোনার বিস্কুট সমেত ধৃত ১

0

নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, বহরমপুর : আজ যখন মুর্শিদাবাদের দৌলতাবাদে বাস দুর্ঘটনায় সকলে শোকাহত, তখন মঙ্গলবার দুপুরে মুর্শিদাবাদের বহরমপুরে, পঞ্চাননতলা এলাকায় জাল সোনার বিসকুট সহ হাতেনাতে পাকড়াও হয় এক যুবক। ধৃত হামিদুল (২৩) পেশায় রিক্সা চালক বলে জানা গেছে, তাঁর কথা মতো তাঁর বাড়ি বহরমপুরের খাগড়া এলাকায়।

এদিন শ্রী জুয়েলার্সের শংসাপত্রসহ সোনার (আসলে জাল) বিসকুট নিয়ে পঞ্চাননতলা মোড়ে খোদ্দের সন্ধান করছিল হামিদুল। সেই মতো সে পথচারি একজনকের কাছে বিক্রির (গছানোর) পন্থা খোঁজে। সোনার বিসকুট, অনেক দাম, চুপচাপ নিয়ে যান, সমস্যার কারণে কমদামে বিক্রি করছি, ইত্যাদি ইত্যাদি। এদিকে দূর্ভাগ্য ক্রমে যাকে গছাতে চেয়েছিল তাঁর নাম তাপস হালদার (২৪), বাড়ি নদিয়া জেলায়, সে বুঝতে পেরে কিছু না বলে মোড়ে থাকা ট্রাফিক পুলিশের কাছে নিয়ে যান। বেগতিক বুঝে বৃথা পালানোর চেষ্টা করে ধৃত বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শি ন‌ওদার সাইফুল ইসলাম।

তাপস হালদার বলেন, এর আগে আমার দুই বন্ধুকে এভাবেই ঠকানো হয়েছিল। তাঁদের কাছ থেকে মোট ২০০০০টাকা নিয়েছিল। আমার কাছে ১০০০০টাকা চাচ্ছিল। ভাগ্যিস আমার জানা ছিল! তাই সরাসরি কিছু না বলে পাশে ট্রাফিক পুলিশের কাছে যায়।

এরপর কর্তব্যরত ট্রাফিক পুলিশ থানায় জানালে পুলিশ এসে হেফাজতে নেয়।

ধৃতের কথায়, তাকে একাজের (বিক্রি) জন্য ৪০০/৫০০টাকা করে দিত মালিক। তবে মালিকের নাম, যোগাযোগ নম্বর কিছুই বলেনি ধৃত।

পুলিশ জানিয়েছে, এর আগেও এমন জাল সোনার জিনিসসহ ধরেছি বহরমপুরে। মালিকে খুঁজে বার করবো। স্থানিয় ও পথচারিদের দাবি, এমন চক্র বেশ কয়েকটাই রয়েছে বহরমপুরে। এদের ব্যবসার ক্ষেত্র প্রধানত বহরমপুর বাসস্ট্যাণ্ড, জলট্যাঙ্ক, খাগড়া, পঞ্চাননতলা, প্রভৃতি মকড়শল জায়গা।