সারা দেশের মধ্যে পশ্চিমবঙ্গে অধিক হারে বাড়ছে আরএসএস!

0

টিডিএন বাংলা ডেস্ক : বাংলার মসনদ এখন তৃণমূলের দখলে। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গে বিজেপি ক্ষমতায় না আসলেও রাজ্যে বাড়ছে আরএসএস এর শক্তি। আর এই খবর সামনে আসতেই অবাক হয়েছেন ধর্মনিরপেক্ষ মানুষ। খবরে প্রকাশ,রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সঙ্ঘের দাবি, এ রাজ্যে গত ৫ বছরে ৭০ শতাংশ শাখা বেড়েছে তাদের। ২০১৩ সালে সঙ্ঘের শাখা সংখ্যা ছিল ৭৫০। বর্তমান সেই তা বেড়ে হয়েছে ১২৭৯। আরএসএসের দাবি, দক্ষিণবঙ্গেই রয়েছে ৯১০টি শাখা। ৩৬৯টি শাখা রয়েছে উত্তরবঙ্গে।
আরএসএসের দক্ষিণবঙ্গের সম্পাদক জিষ্ণু বসু মিডিয়াকে বলেন, ”২০১৩ সালে আমাদের ৭৫০টি শাখা ছিল। ২০১৭ সালে আমরা ১,১০০-তে পৌঁছেছি। ২০১৮ সালে সেই সংখ্যা একলাফে বেড়ে হয়েছে ১২৭৯। পশ্চিমবঙ্গ থেকে খুব ভাল সাড়া পাচ্ছি আমরা। আরএসএসে যোগদান করছেন যুবকরা। এটা জেহাদি ও মৌলবাদিশক্তির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আমাদের সাহায্য করবে। এখানে হিন্দুদের অবস্থা মোটেই সন্তোষজনক নয়। বাংলাদেশি সন্ত্রাসবাদীদের আস্তানা হয়ে উঠেছে বাংলা। ফলে শাখা ও অন্যান্য সংগঠনের শক্তি বাড়ানোই আমাদের অগ্রাধিকার।”
এ বছর রাম নবমী উদযাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। আর এতে খুশি আরএসএস। জিষ্ণু বসুর কথায়, ”শাসক দল রাম নবমী উদযাপন করার সিদ্ধান্ত নেওয়ায় আমরা খুশি। ওরা নিজেদের আগের অবস্থান বদল করেছে। কোনও রাজনৈতিক দলের বিরুদ্ধে নই আমরা।”        আরএসএস সূত্রে খবর, গোটা দেশে গতবছর সংগঠন বৃদ্ধি পেয়েছে ৪০ শতাংশ হারে। সেখানে পশ্চিমবঙ্গের হার জাতীয় গড়ের চেয়ে বেশি। এখানে সংগঠন বৃদ্ধি পেয়েছে ৪৭ শতাংশ। ফলে পশ্চিমবঙ্গ যে সঙ্ঘের উর্বর জমি হয়ে উঠছে, তা নিয়ে সন্দেহ নেই।
সেকুলার শক্তিগুলির প্রশ্ন আগেতো এতো প্রভাব ছিলোনা আরএসএসের তাহলে এখন কেন? উল্লেখ্য, আরএসএসের শতশত স্কুল অনুমোদন পেয়েছে বাংলায়। সেইসব স্কুল থেকেও হিন্দুত্বের প্রচার করা হয়।

head_ads