রাজস্থানে মৃত থানারপাড়া ফাজিলনগরের সেনাজওয়ান বাপী সেখ, আত্মহত্যা মানতে নারাজ পরিবার

0

রেবাউল মন্ডল, টিডিএন বাংলা, নদীয়া: বছর বাইশের তরতাজা যুবক বাপী সেখ। ভারতীয় সেনায় যোগ দিয়েছিল পরিবারের একমাত্র সন্তানটি। এখনো দুবছর পেরোইনি। সপ্তাহ খানেক আগে বাপীর পোস্টিং হয়েছিল রাজস্থানে। এর মধ্যেই ছেলের মৃত্যুর খবর মেনে নিতে পারছেনা পরিবার থেকে গ্রামবাসী এমনকি বন্ধুরাও। ঐ বীর সৈনিকের বাড়ি নদিয়ার থানারপাড়া থানার ফাজিলনগর গ্রামে। শনিবার রাতের নামাজ সেরে যখন সবে ঘুমিয়েছে মা বাবা ঠিক তখনই বেজে উঠে মোবাইলটি। রাত ১০টা ১৫ নাগাদ অফিসার ফোনে জানায় আত্মহত্যা করেছে বাপী সেখ।

চমকে উঠেন সেনা জওয়ানের মা। খোঁজ খবর নিতে শুরু করেন। অবশেষে মৃত্যু নিশ্চিত হয়। কিন্তু আত্মহত্যার কথা কোন ভাবেই বিশ্বাস করতে পারছেন না তারা।
পরিবারের পক্ষ থেকে চাচাতো ভাই সামিম সরকার জানান, শুক্রবারই সকলের সাথে ভালো ভাবেই কথা বলেছে বাপী। ঈদের আগেই ৯জুন ছুটিতে বাড়ি আসার কথাও জানিয়েছিল সে। বন্ধুদের সাথেও স্বাভাবিক কথাবার্তা হয়েছে। তারপর শনিবার থেকে হোয়াটসআপ ফেসবুকেও আর অনলাইন দেখা যায়নি।
কিন্তু ভাই আত্মহত্যার করবে একথা আমরা বিশ্বাস করতেই পারছিনা।

গ্রামের শিক্ষক মিজমাউল হক, যিনি ছোট থেকেই বাপীকে পড়িয়েছেন। টিডিএন বাংলাকে বলেন, খবর শুনেই শান্ত মিষ্টি স্বভাবের বাপীর হাসি মুখটা সারাক্ষন চোখের সামনে ভাসছে। কিন্তু ও আত্মহত্যা করবে মানতে পারছিনা। গ্রামবাসীদের মুখেও একই কথা। একমাত্র সন্তানকে হারিয়ে ভেঙে পড়েছেন মা বাবা। শোকাচ্ছন্ন পরিবারকে একটু সহানুভূতি দিতে দিন বাড়ার সাথে সাথে ভিড় বাড়ছে লোকজনেরও। খবর পেয়েই রাত্রি সাড়ে বারোটায় কলকাতার উদ্যেশ্যে বেরিয়ে দমদম থেকে আজ সকাল ৭.৩৫ এর ফ্লাইটে দিল্লির উদ্দেশ্যে রওনা দিয়েছে পরিবারের লোকজন।