ভুপেন মাহাত, টিডিএন বাংলা, ঝাড়গ্রামঃ জঙ্গল মহলে বেড়াতে এসে যদি দিকভ্রম হয়ে যায়, সোজা একটি গরাম থানের কাছে চলে যান। পূর্বদিকটি খুঁজে পেয়ে যাবেন। এই গরাম থান হচ্ছে আদিবাসীদের পূজাস্থল, যা পূবমুখে শাল বা অন্য কনো গাছের তলায় বসানো গোলাকার পাথর মাত্র এবং পাশে রাখা আদিবাসীদের নিবেদিত মাটির হাতি ঘোড়া। এটাই গরাম থান চিহ্নিত করনের বৈশিষ্ট। জঙ্গলমহলে এমন গ্রাম নেই যেখানে গরাম থান নেই। ভাষার বিভিন্নতার কারনে কোথাও কোথাও একে সারনা থান বা জাহিরা থান বলা হয়ে থাকে। বছরে চারবার যথাক্রমে পয়লামাঘ কুড়মালী মতে নববর্ষ উপলক্ষে, চৈত্রসংক্রান্তীতে নতুন ফুল ফল ও পাতা গ্রহনার্থে, আষাঢ়মাসে চাষের কাজ শুরুর আগে এবং অঘ্রায়নে ফসল কাটার আগে পূজা হয়ে থাকে। পূজারীকে সাঁওতালরা মাঝি এবং কুড়মিরা লায়া বলেন। অবাকের বিষয় ফার্জি ম্যাপ বা নক্সাতে এগুলো চিহ্নিত করা নেই। সম্প্রতি রাজ্যসরকারের বিভিন্ন সভাসমিতিতে আদিবাসীদের পুজাস্থলের জন্য ভূমিদানের প্রতিশ্রুতি উঠে এসেছে এবং তাতেই ধন্দে পড়েছেন কুড়মিরা। কারন তারা এসটি হিসেবে স্বীকৃত নন। এবিষয়ে আদিবাসী কুড়মি সমাজের মেদিনীপুরের জেলাস্তরীয় নেতা মৃন্ময় কাটিয়ার টিডিএন বাংলাকে জানিয়েছেন বিডিও অফিসে খোঁজ নিয়েছিলাম সদুত্তর পাইনি।
#টিডিএন বাংলা