কৌশিক সালুই, টিডিএন বাংলা, বীরভূম : খনিজ আইনের কালো মেঘ দেখছেন বন্ধ হয়ে থাকা বীরভূমের পাথর ব্যবসায়ীরা। জট কাটাতে একটি উচ্চপর্যায়ের বৈঠক হলেও তাতে কতটা সমস্যার সমাধান হবে তা নিয়ে সন্দিহান ঐ ব্যবসায়ীরা। যদিও সরকারি উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন সকলেই। তারা আশাবাদী বর্তমান রাজ্য সরকার পাথর শিল্পের অচলাবস্থা কাটাতে কোন নির্দিষ্ট নীতি প্রণয়ন করবেন।

শুক্রবার সিউড়িতে উচ্চপর্যায়ের ওই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন ভূমি ও ভূমি রাজস্ব দপ্তর এর মুখ্য সচিব মনোজ পান্থে, অতিরিক্ত মুখ্য সচিব (পরিবেশ এবং খনিজ দপ্তর)ইন্দিবর পান্ডে , অতিরিক্ত মুখ্য সচিব (এমএসএম ই ) রাজিব সিংহ এবং শিল্প ও বানিজ্য দপ্তর এর মুখ্য সচিব উৎপল ভদ্র। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বীরভূমের জেলা শাসক মৌমিতা গোদাড়া বাসু, অতিরিক্ত জেলা শাসক রঞ্জন কুমার ঝাঁ, পুলিশ সুপার এবং বীরভূমের বিভিন্ন পাথর খাদান মালিক সংগঠনের পদাধিকারীরা।

২০১৫ সাল থেকে বীরভূমের ২৬৭ পাথর খাদানের মধ্যে মাত্র ছয়টিকে বাদ দিয়ে সমস্ত খাদান বন্ধের নির্দেশ দেয় পরিবেশ আদালত। এরপর থেকেই পাথর খাদান মালিকদের পক্ষ থেকে বারবার জেলা প্রশাসন এবং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে খাদান খোলার জন্য আর্জি জানানো হয়। শুক্রবার পাথর খাদান খোলা নিয়ে একটি উচ্চপর্যায়ের বৈঠক হল ‌। এদিন বৈঠকে আধিকারিকরা ব্যবসায়ীদেরকে জানিয়েছেন, খনিজ সম্পদ আইনে টেন্ডারের মাধ্যমে লিজ দেওয়া হবে। সেক্ষেত্রে পাথর পাথর ব্যবসায়ীদের মতামত নেওয়া হয়েছে। আগামী ২৪শে জুলাই পাথর শিল্পের জট কাটাতে নবান্নে এই বিষয়ে মন্ত্রিগোষ্ঠীর বৈঠক আছে। সেই বৈঠকে এই দিনের বৈঠকে বিষয়বস্তু তুলে ধরে আলোচনা করা হবে।

বীরভূম জেলা পাথর ব্যবসায়ী মালিক সমিতির সম্পাদক কমল খান বলেন, খনিজ আইন মোতাবেক টেন্ডার করা হলে বড় বড় কর্পোরেট হাউস পা রাখবে এই ব্যবসায়। তাতে আমাদের জেলার ব্যবসায়ীরা প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে পারবে কিনা সন্দেহ আছে। বর্তমান রাজ্য সরকার আমাদের সমস্যা সমাধানে যে উদ্যোগী হয়েছেন তাতে আমরা আশাবাদী। কোনো নির্দিষ্ট আইন বা নীতি প্রণয়ন করে আমাদের বন্ধ হয়ে থাকা পাথর শিল্প ফের চালু করতে সহায়তা করবে। ভূমি ও ভূমি রাজস্ব দপ্তর এর মুখ্য সচিব মনোজ পান্থ জানিয়েছেন, এদিন আমরা জেলার পাথর ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে মতামত নিয়েছি আগামী ২৪ তারিখে যে মিটিং আছে সেখানে এ বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে।