ফরাক্কায় ডেঙ্গি কবলিত এলাকা পরিচ্ছন্নতা অভিযানে হাত লাগালেন বিডিও 

0

শাহাজাদ হোসেন, টিডিএন বাংলা, মুর্শিদাবাদ :  গত বছরের মতো যেন এবারও অজানা জ্বরে সাধারণ মানুষকে কাবু না করে তাই এবার আগেভাগেই ব্লকের সব থেকে ডেঙ্গু প্রবণ এলাকায় সাফাই অভিযান চালালো ফারাক্কা ব্লক প্রশাসন। রবিবার ব্লকের অর্জুন পুর গ্রাম পঞ্চায়েতের  শিবনগরে এই সাফাই অভিযানে নেমে জেলায় নজীর তৈরি করলো ফারাক্কা ব্লকের বিডিও কেশাং ডেন্ডুপ ভুটিয়া । এদিন ওই এলাকার প্রধান শিক্ষক, ছাত্রছাত্রী দের নিয়ে সকাল থেকেই এলাকা পরিচ্ছন্নতা ও ড্রেনে ব্লিচিং পাউডার দিতে শুরু করেন তারা। ব্লক প্রশাসনিক আধিকারিক এর এহেন কাজে খুশিতে গ্রাম পরিচ্ছন্নতায় নেমে যান এলাকাবাসী।

ফারাক্কার শিবনগর গ্রাম। বেশিরভাগ মানুষই বিড়ি শ্রমিক ও রাজমিস্ত্রি। গোটা গ্রাম অপরিষ্কার ও নোংরা ড্রেনের কুফলে গত বছর গোটা গ্রামে ডেঙ্গু মারাত্মক আকার ধারণ করেছিলো। বাড়ি বাড়ি অজানা জ্বরে কাপছিলো এলাকাবাসী। তাই এবার সেই অজ্বানা জ্বরের হাত থেকে বাচতে প্রশাসনিক করতাদের এই পদক্ষেপ বলে জানা গেছে। উল্লেখ্য, সরকারী মতে গত বছর ফারাক্কা ব্লকে যখন ডেঙ্গুতে ৪৮ জন আক্রান্ত হয়েছিলেন ঠিক সেসময়ে সেই ৪৮ জনের মধ্যে ১৮ জনই ছিলো এই শিবনগর গ্রামের। পুরো এলাকায় সংক্রমিত হয় এই ডেঙ্গু। আপদ কালীন পরিস্থিতি তে সিদ্ধান্ত নিতে হিমসিম খেয়েছিলেন প্রশাসন।

এবিষয়ে ফারাক্কার বিএমওএইচ স্বজল কুমার মন্ডল জানান, অর্জুন পুর গ্রাম পঞ্চায়েতের শিবনগর গ্রামে গত বছর ব্যপক ডেঙ্গু সংক্রমিত হয়েছিলো। গোটা ব্লকে যখন মোট ৪৮ জন ডেঙ্গুতে আক্রান্ত তখন এখানেই শুধু ১৮ জন আক্রান্ত হয়েছিলেন। সেসময় আমরা তড়িঘড়ি করে এলাকা থেকে বিভিন্ন ভাবে ডেঙ্গু দুরীকরণ করেছিলাম। কিন্তু এবারে আমরা আগেভাগেই পরিকল্পনা নিয়ে জীবানূ ধংস্ব করলাম।

এদিকে শুধু মুখে বলা নয় একজন ব্লক সমস্টি উন্নয়ন আধিকারিক তথা ফারাক্কার বিডিও কে ডি ভুটিয়া সরাসরি নিজ হাতে কোদাল, বালতি নিয়ে সংক্রমিত এলাকায় পরিচ্ছন্নতার কাজ করতে নামাই চোখ কপালে উঠেছে সকলের। বিডিও জানান, আমাদের এটা নৈতিক দায়িত্ব। এই এলাকাটি আগে থেকেই ডেঙ্গু কবলিত। তাই আমরা উদ্যোগ নিয়ে এলাকা থেকে ডেঙ্গু জীবানু ধংস্ব করতে স্থানীয় প্রধান শিক্ষক সহ ছাত্রছাত্রীদের নিয়ে সাফাই অভিযানে নেমেছি। অন্যদিকে চার স্কুলের প্রধান শিক্ষক পার্থ সারণী দাস, সঞ্জীব দাস, প্রশান্ত মাড্ডি জানান, বিডিও সাহেব আমাদের পথ দেখিয়ে দিয়েছেন।  আমাদের নিয়ে স্বয়ং উনিই যখন সংক্রমিত এলাকা পরিদর্শন করার পাশাপাশি ব্লিচিং দিয়ে পরিস্কার করছেন তখন আমরা বসে থাকতে পারিনি। স্কুলের সব ছাত্রছাত্রী কে ডেকে নিয়ে আমরাও বিডিও’র সাথে  কাজে হাত লাগিয়েছি।

tdn_bangla_ads