ভারতে প্রথম ইউনানী ঔষধের পথিকৃৎ হাকিম আজমল খানের স্মরণে বিশ্ব ইউনানী মেডিসিন ডে পালিত হবে

0

জামিতুল ইসলাম, টিডিএন বাংলা, কলকাতা: ভারত সরকারের স্বাস্থ্য মন্ত্রকের আয়ুষ বিভাগের নির্দেশ ও তত্ত্ববধানে, মসিহুল মুল্ক হাকিম আজমল খান-এর সার্ধশত জন্মবার্ষিকীকে সামনে রেখে দ্য ক্যালকাটা ইউনানী মেডিক্যাল কলেজ এণ্ড হসপিট্যাল, অল ইণ্ডিয়া টিব্বি কনফারেন্স ও ওয়েস্ট বেঙ্গল ইউনানী টিব্বি ডক্টর্স ওয়েলফেয়ার এ্যাসোসিয়েশন সম্মিলিত ভাবে আগামী ১২ ফেব্রুয়ারি কলকাতার পার্কসার্কাসের হজ হাউসে পালন করতে চলেছে ওয়ার্ল্ড ইউনানী মেডিসিন ডে ৷ বৃহস্পতিবার কলকাতা প্রেস ক্লাবে এক সাংবাদিক সম্মেলনে এই খবর জানানো হয় ওই সংস্থার পক্ষ থেকে।
উল্লেখ্য, ইংরেজরা প্রথমে নিজেদের চিকিৎসার সুবিধার্থেই এই দেশে এ্যালোপ্যাথিক চিকিৎসা প্রনয়ণ করেছিল।ফলতঃ, সেই সময়ে আমাদের দেশীয় জনসাধারণ প্রায় বিনা চিকিৎসাতেই মারা যেতেন ৷
সেই দুর্বিসহ সময়ে হাকিম আজমল খান দেশীয় আয়ুর্বেদ চিকিৎসা পদ্ধতিকে কাজে লাগিয়ে দিল্লীর করোলবাগ অঞ্চলে স্থাপন করেছিলেন করোলবাগ ইউনানী এণ্ড আয়ুর্বেদিক মেডিক্যাল কলেজ ৷
হাকিম আজমল খানের অনুরোধে দেশের প্রথম এই ইউনানী ও আয়ুর্বেদ হাসপাতালের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেছিলেন মহাত্মা গান্ধী ৷
ওয়ার্ল্ড ইউনানী মেডিসিন ডে পালনের পূর্বে এক সাংবাদিক সম্মেলন ডেকে আয়োজক সংগঠনগুলোর তরফ থেকে জানানো হয়,’ক্যালকাটা ইউনানী মেডিক্যাল কলেজ এণ্ড হসপিট্যাল , কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বীকৃতি পায় ১৯৯৮ সালে৷
২০০২ সালে এই কলেজ থেকে প্রথম ব্যাচেলর অব ইউনানী মেডিসিন এণ্ড সার্জারী(বি ইউ এম এস) পাশ করে ছাত্রছাত্রীরা চিকিৎসক রূপে স্বীকৃতি পায়।আজ পর্যন্ত এই মেডিক্যাল কলেজ থেকে ১৫ টা ব্যাচ পাশ করে বেরিয়ে গেছে।কিন্তু খুবই দুঃখজনক বিষয় , এই হসপিট্যালের ইন্টার্ণীরা যেমন কেউই সরকার থেকে একটা টাকাও স্টাইপেন্ড পাননা , তেমনই এখানকার পাশ করা চিকিৎসকদেরও কোনো হসপিট্যালে বা প্রাইমারী হেল্থ সেন্টারে মেডিক্যাল অফিসার (এম ও) রূপে নিয়োগ করা হচ্ছে না ৷আমরা এর আগে বাম আমলেও মুখ্যমন্ত্রীদের কাছে বারবার এই অভিযোগ জানিয়েছিলাম , কিন্তু ওঁনারা আমাদের কথায় কর্ণপাত করেননি ৷ এখনও আমরা বর্তমান শাসকদলকে এই বিষয়ে বারবার বলছি, কিন্তু সরকারের সদর্থক কোনো ভূমিকা দেখতে পাচ্ছিনা ৷”

এদিন সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ক্যালকাটা ইউনানী মেডিক্যাল কলেজ এণ্ড হসপিট্যাল-এর প্রিন্সিপাল প্রোফেসর ডাঃ মোঃ আয়ূব, হসপিট্যাল-এর মেডিসিন বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রোফেসর ডাঃ এম এ পারভেজ, হসপিট্যাল-এর ফার্মেসি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ও ডেপুটি সুপারিন্টেন্ডেন্ট প্রোফেসর ডাঃ দানিশ জাফর।

head_ads