টিডিএন বাংলা ডেস্ক: সরিয়ে দেওয়া হল উত্তর দিনাজপুর জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংসদের চেয়ারম্যান জাহিদ আলম আরজুকে। গতকাল সন্ধে নাগাদ এবিষয়ে রাজ্যের শিক্ষা দপ্তর থেকে নির্দেশিকা এসে পৌঁছেছে উত্তর দিনাজপুর জেলা প্রশাসনের কাছে। নতুন চেয়ারম্যান কে হবেন তা নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে।খবর এনাডুর ইন্ডিয়ার।ওই খবরে আরও বলা হয়েছে,
জাহিদ আলম আরজু গোয়ালপোখরের বিধায়ক তথা রাজ্যের মন্ত্রী গোলাম রব্বানির ঘনিষ্ঠ। অন্যদিকে সূত্রের খবর, সরিয়ে দেওয়া হতে পারে জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিদর্শক আমিনুল আহসানকেও। নতুন পরিদর্শক হিসাবে যোগ দেওয়ার সম্ভাবনা সুজয় মাইতির। সুজয়বাবু বর্তমানে মেদিনীপুরে কর্মরত। হঠাৎ এই রদবদলের জেরে জল্পনা ছড়িয়েছে উত্তর দিনাজপুর জেলা প্রাথমিক শিক্ষক মহলে।
জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় সংসদের চেয়ারম্যান জাহিদ আলম আরজু জানিয়েছেন, “আমিও শুনেছি। কিন্তু নির্দেশ হাতে পাইনি। কাল বিস্তারিত জানতে পারব। সরস্বতী পুজোর দিন ছুটি সংক্রান্ত নির্দেশিকার জেরেই এই অপসারণ কি না, তা বলতে পারব না।”
উল্লেখ্য, ১০ জানুয়ারি উত্তর দিনাজপুর জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় সংসদের তরফে জানুয়ারি মাসের ছুটির তালিকা প্রকাশ করা হয়। তালিকায় সংসদের চেয়ারম্যান জাহিদ আলম আরজ়ু ও জেলা প্রাথমিক বিদ্যালয় সংসদের সচিব আমিনুল আহসানের সই ছিল। ছুটির তালিকায় ১ জানুয়ারি, বিবেকানন্দের জন্মদিন, নেতাজির জন্মদিন ও প্রজাতন্ত্র দিবসে ছুটি থাকলেও সরস্বতী পুজোর (২২ জানুয়ারি, সোমবার) দিনটিতে ছুটির দিন বলে উল্লেখ ছিল না। 
বিষয়টি নিয়ে ক্ষোভের সঞ্চার হয় উত্তর দিনাজপুর জেলার প্রাথমিক বিদ্যালয় মহলে। প্রতিবছর এই দিনটিতে ছুটি থাকলেও, কেন এবছর সরস্বতী পুজোতে ছুটি ঘোষণা হল না, তা নিয়ে ক্ষোভ চরমে ওঠে শিক্ষক শিক্ষিকাদের মধ্যে। সংসদের এই সিদ্ধান্ত নিয়ে তৈরি হয় বিতর্ক। এই খবর ইনাডু বাংলাতে প্রকাশিত হওয়ার পর নড়েচড়ে বসেন শিক্ষা দপ্তরের অধিকর্তারা। পরের দিন পূর্বের তালিকা বাতিল করে ছুটির সংশোধিত তালিকা প্রকাশ করে সংসদ। সেখানে সরস্বতী পুজোতে ছুটির উল্লেখ ছিল।
এদিকে হিন্দু সংহতির নেতা তপন ঘোষ এই খবরটি শেয়ার করে ফেসবুকে লিখেছেন,”রাজ্য সরকার সরিয়ে দিল জাহিদ আলম কে। এই আধিকারিক-ই উত্তর দিনাজপুর জেলার প্রাথমিক স্কুলে সরস্বতী পূজার ছুটি বাতিল করেছিলেন।
তেহট্ট স্কুলে সরস্বতী পুজো হল। জাহিদ কে সরতে হল।
হিন্দুর আওয়াজ কানে যাচ্ছে।”