মুম্বাইয়ের বিরুদ্ধে আজ বদলার ম্যাচ নাইটদের, বাজিমাৎ হলেই ফাইনালে

স্পোর্টস ডেস্ক, টিডিএন বাংলা : আই পি এল ফাইনাল নিশ্চয়তার হইভোল্টেজ ম্যাচে আজ কলকাতা নাইট রাইডার্স ও মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের মুখমুখি লড়াই। আজ এই প্রতিদ্বন্দ্বিতা পূর্ন দু’দলের যেই জিতবে সেই ফাইনালে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে।
বেঙ্গালুরুর এম চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত কলকাতা-মুম্বাইয়ের মধ্যকার দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচটি। হায়দ্রাবাদে রাইজিং পুনের প্রতিপক্ষ কে হতে চলেছে সেটিই আজ দেখার। এ দু’দলের অতীত পরিসংখ্যান অবশ্য বলছে, লড়াইয়ে এগিয়ে রয়েছে মুম্বাই।ছন্দে রয়েছে কলকাতা, সব মিলিয়ে আইপিএলে দু’দল মুখোমুখি হয়েছে ২০ বার। এর মধ্যে মুম্বাই জিতেছে ১৫ বার। আর চলতি আইপিএলে দু’বারের সাক্ষাতেই হেরেছে কেকেআর। যদিও সমস্ত পরিসংখ্যান উড়িয়ে দিয়ে জাক কালিস বলেছেন ভালো দলই আজ জয়ী হবে। প্রথম কোয়ালিফায়ারে রাইজিং পুনে সুপারজায়ান্টের মুখোমুখি হয়েছিল মুম্বাই। ম্যাচটিতে ২০ রানে হেরে যায় রোহিতের দল।পুনে মুম্বাইকে ছুড়ে দেওয়া ১৬৩ রানের লক্ষ্যমাত্রা তাড়া করতে নেমে মুম্বাইয়ের ইনিংস থেমেছে ১৪২ রানে। অন্যদিকে এলিমিনেটর ম্যাচে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিপক্ষে জয় পায় কেকেআর। গৌতম গম্ভীরের ঝটিকা ঝড়ে হায়দরাবাদ ছিটকে গেছে টুর্নামেন্ট থেকেই। ২০ ওভারে ৭ উইকেটে বিনিময়ে ১২৮ রান গড়ে তোলে হায়দরাবাদ। এরপর শুরু হয় বৃষ্টি। শেষ পর্যন্ত কেকেআরের টার্গেট দাঁড়ায় ৬ ওভারে ৪৮ রান। চার বল বাকি থাকতেই অসাধারন পারফরমেন্স করে জয়ী হয় নাইট বাহিনী ।
সুনীল নারাইন আবার বিস্ময় ব্যাটসম্যান থেকে হয়ে যেতে পারেন বিস্ময় বোলার। চিন্নাস্বামীর মন্থর পিচে বোলিং শুরু করতে পারেন। মুম্বইয়ের ওপেনার সিমন্স ও পার্থিব স্বস্তিতে থাকেন না নারাইনের বিরুদ্ধে । গৌতম গম্ভীরকে থামাতে পেসকেই অস্ত্র করবেন রোহিত-রা।
এই দিকে গত সপ্তাহ থেকেই বেঙ্গালুরুতে প্রচুর বৃষ্টি হচ্ছে। শুক্রবার ও বৃষ্টির পূর্বাভাসের ব্যাতিক্রম নয়। দু’দল নিশ্চিতভাবে আবহাওয়ার দিকে চোখ রাখবে। টস হয়ে উঠতে পারে মহাগুরুত্বপূর্ন।

মুম্বাই একাদশ (সম্ভাব্য):পার্থিব প্যাটেল (উইকেটরক্ষক), লেন্ডল সিমন্স, রোহিত শর্মা (অধিনায়ক), আম্বাতি রাইডু, কাইরন পোলার্ড, ক্রুনাল পান্ডে, হার্দিক পান্ডে, হরভজন সিং, মিচেল ম্যাকক্লেনাগান, লাসিথ মালিঙ্গা, জাসপ্রিত বুমরাহ।

কলকাতা একাদশ (সম্ভাব্য):সুনীল নারাইন, ক্রিস লিন, গৌতম গম্ভীর (অধিনায়ক), রবিন উথাপ্পা (উইকেটরক্ষক), ইউসুফ পাঠান, ইশাঙ্ক জাগ্গি, সুরিয়াকুমার যাদব / কুলদিপ যাদব, পিয়ুশ চাওলা, নাথান কোল্টার নাইল, উমেশ যাদব, ট্রেন্ট বোল্ট।