মুর্শিদাবাদে বিশ্ববিদ্যালয় না হলে রাজ্যজুড়ে আন্দোলনে নামার হুমকি ফ্রাটারনিটি মুভমেন্টের

নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, কলকাতা : মুর্শিদাবাদে বিশ্ববিদ্যালয় না হলে রাজ্যজুড়ে বৃহত্তর আন্দোলনে নামার হুমকি দিলো ফ্রাটারনিটি মুভমেন্ট অফ ইন্ডিয়া। বিধানসভার শীতকালীন অধিবেশনে মুর্শিদাবাদে বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে শিক্ষামন্ত্রীর নেতিবাচক উত্তরে ব্যপক ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ফ্রাটারনিটি মুভমেন্টের রাজ্য কনভেনর আরাফাত আলি। সোমবার এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে আরাফাত আলি বলেন , ‘মুর্শিদাবাদের হতভাগ্য মানুষদের হতাশ হওয়ার কিছু নেই। দীর্ঘ কয়েক দশক বামপন্থীরা এই জেলার মানুষকে মানুষ মনে করে তাদের শিক্ষা-দিক্ষার উন্নতি করে তাদের মুল স্রোতে আনার কথা ভুল করেও ভাবেনি। প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায় এই জেলার মানুষের কাঁধে ভর করে ভারতের অর্থমন্ত্রী ও রাষ্ট্রপতি হয়েছিলেন। কিন্তু তিনিও একবারের জন্য এই জেলার রাজমিস্ত্রি, বিড়ি শ্রমিক, কৃষক, মৎসজীবি সহ অন্যান্য পেশায় নিয়োজিত হতদরিদ্র ঘরের সন্তানরা উচ্চশিক্ষার আঙিনায় নিয়ে যাওয়ার চেস্টা করেন নি। তিনি বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে উদ্দেশ্য করে বলেন, ‘যিনি মা মাটি মানুষের নেত্রী বলে ঢাক বাজান তিনিও সেই সমস্ত মায়েদের কান্নার আওয়াজ শুনতে পান না। যে মায়েদের সন্তানরা উচ্চশিক্ষার সুযোগ না পেয়ে ভিন্ন রাজ্যে শ্রমিকের কাজের জন্য পাড়ি দেয় এবং পরিশেষে কফিন বন্দি হয়ে মায়ের কোলে ফিরে আসে। তাই জেলারর মানুষের কথা ভেবে অবিলম্বে মুর্শিদাবাদে একটি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করুক সরকার।

সরকারের উদ্দেশ্যে তিনি হুমকি দিয়ে বলেন, ছেলে হারানো সেই মায়ের আর্তনাদ আমাদের মমতাময়ী মুখ্যমন্ত্রীর হৃদয়ে নাড়া দেয়না। তবে আমাদের ভুললে চলবে না এই বাংলার মানুষ বামফ্রন্টের শিরদাঁড়া ভেঙে দিয়েছে, কংগ্রেসকে এই রাজ্যে সাইন বোর্ডে পরিণত করার দিকে নিয়ে গেছে। আর খুব বেশি দেরি নেই আপনার শেষের শুরু হতে। তাই আর বঞ্চনা নয়।

অবিলম্বে মুর্শিদাবাদের মানুষের ন্যায্য পাওনা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করুন। নইলে সারা জেলার মানুষকে সঙ্গে নিয়ে বৃহত্তর আন্দোলন, প্রতিবাদ, প্রতিরোধে সামিল হবে ফ্রাটারনিটি মুভমেন্ট।