আরএসএসের আরও শক্তি বাড়াতে এই সপ্তাহে বাংলায় আসছেন মোহন ভাগবত

 তথ্য বলছে, পশ্চিম ভারতে আরএসএস শক্তিশালী হলেও পূর্ব ভারতে সেইভাবে সংগঠনটি জায়গা করতে পারেনি। তবে চেষ্টা যে হয়নি তা নয়, কল্যাণীর সভা থেকে কলকাতার সমাবেশ-কেন্দ্রীয় নেতারা বারবার ছুটে এসেছেন বাংলায়।  বর্তমানে আসাম, বাংলা, বিহারকে বিশেষ নজরে রেখেছে আরএসএস। কিন্তু হটাৎ কেন ব্রিগেডে সভা করছে আরএসএস?রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক সংঘের কলকাতার নেতা তরুন মূখার্জির জবাব, “এটা একটা সংগঠনের নিয়মিত কার্যক্রম। আসলে আমরা কর্মীদের মান উন্নয়নের জন্য এই অনুষ্ঠান করি।” অপরদিকে আরএসএসের আরেক নেতা অনাথ মন্ডল বলেন, “মোহনজি আগামী বছরের তেরো ও চোদ্দো জানুয়ারি রাজ্যে আসছেন। দুইদিনের কার্যক্রমের মধ্যে একটা দিন প্রকাশ্য সমাবেশ হবে।”
আরএসএসের নেতাদের মতে, কলকাতাতে একশো পাঁচের অধিক  সক্ৰিয় শাখা চলছে সংঘের। আগামীতে কলকাতা সহ রাজ্যে সংঘের কাজকে আরও শক্তিশালী করতে মোহন আবেগকে কাজে লাগাতে চাইছে দলটি। অনাথ মন্ডলের কথায়,”আমাদের টার্গেট আগামীতে মোহনজির উপস্থিতিতে কলকাতায় ২০০ ইউনিটের উপস্থিত করা। বর্তমানে সর্বত্র ওয়ার্ড যোজনা চলছে। ভবিষ্যতে প্রতি দশ হাজার জনবসতি এলাকায় সংঘের কিছু না কিছু কাজ করা হবে।” তবে পশ্চিম ভারতের সংঘের কাছ দেখে থেকে  আরএসএস শিক্ষা নিচ্ছে। অনাথ বাবুর মতে, “পশ্চিম ভারতে যেকোন দেশ বিরোধী কাজের মোকাবিলা করতে পারে আরএসএস।মানুষকে সাথে নিয়ে যেকোন দেশ বিরোধী কাজ রুখে দেয়।কিন্তু পূর্ব ভারতে সেই শক্তি অর্জন করেনি। সেকারণে আমরা এই এলাকায় বেশি নজর দিচ্ছি।” কিন্তু কতলোক হবে সভায়? আরএসএস নেতা তরুণ মূখার্জি বলছেন, “সংঘের বাইরে কোনও লোক এই সভায় আসবেনা। এটা শুধু সংঘের কর্মীদের সভা।