পাঠকের কলম, টিডিএন বাংলা : আসসালামু আলাইকুম, সূদীর্ঘ আটদিন। আমারা ৯জন। আমাদের ঠিকানা দমদম সেন্ট্রাল জেল। সেখানে বন্দি। কিন্তু আমাদের অপরাধ? আমরা ঐতিহ্যবাহী আলিয়ার প্রান রক্ষার্থে নিজেদের প্রান বিষর্জনে প্রস্তুত। আমাদের অপরাধ আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইনকে সঠিক প্রনয়ণ করার দাবীতে অনড় ছিলাম।
অপরাধ আমাদের আমরা দুর্নিতিপরায়ন উপাচার্যের মুখোশের আড়ালে থাকা মুখটা দেখার আবেদন করেছিলাম। চেয়েছিলাম সকলের তরে উচ্চশিক্ষার সুযোগ। তাই আজ আমরা সংখ্যালঘু দপ্তরের প্রধান সচিব সুরেশ কুমার ও উপাচার্য আবু তালেব খানের কুচক্রান্তের শিকার। তাই আমরা আজ বিনা অপরাধের জেল খাটা আসামি। আলহামদুলিল্লাহ এর মধ্যেও খুশির খবর এটাই যে আমরা এ অবস্থা থেকে মুক্তি পেয়েছি আপনাদের দুয়া ও অক্লান্ত প্রচেষ্টায়। যে সকল ছাত্রছাত্রী ও সহৃদয় ব্যক্তিবর্গ আমাদের এই অচলাবস্থায় পাশে ছিলেন আপনাদের সকলকে জানাই আন্তরিক ভাবে মোবারক বাদ। আশা করবো আপনারা আমাদের সাথে থাকবেন এবং দু’আ করবেন আমরা যেন আমাদের এই ন্যায় আন্দোলন চালিয়ে যেতে পারি এবং ঐতিহ্যবাহী আলিয়ার অঙ্গহানি রোধ করতে পারি।
আর আপনারা এভাবে পাশে থাকলে কোনো অশুভ শক্তি  আমাদের জেলে ভরে এবং পুলিশ লেলিয়েও ন্যায় দাবী থেকে হঠাতে পারবে না ইনশা আল্লাহ।
                 মুহা: আব্দুল কাহহার
        সাধারণ সম্পাদক, ছাত্র সংসদ,
             আয়া আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়।