তিয়াষা গুপ্ত, টিডিএন বাংলা: প্রাথমিক যে ফল আসছে তাতে বাংলায় ২ থেকে দুই অঙ্কে পৌঁছাতে চলেছে বিজেপি। এই রাজ্যকে প্রথম থেকে পাখির চোখ করে এগিয়েছিল বিজেপি। বারবার এসেছেন মোদী ও অমিত শাহ। বৃহস্পতিবার বেলা গড়িয়ে গেলেও বামেরা খাতা খুলতে পারল না। রাজ্যে একেবারে মার্জিনালাইজড তারা। প্রশ্ন হল বামেদের ভোট গেল কার ঝুলিতে?

তৃণমূলের আসন সংখ্যা কমেছে জোড়া ফুলের। অন্যদিকে বঙ্গে নতুন করে বিস্তার লাভ করল পদ্ম বাগিচা। ফলে স্বাভাবিক দৃষ্টিতে মনে হবে, বামেদের ভোট বিজেপির ঝুলিতে গেছে। তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ৪২-এর টার্গেট দিয়েছিলেন। সেটা সম্ভব হবে বলে মনে হচ্ছে না। তাদের আসন কমেছে। তবে শতাংশের হিসেবে খুব একটা হেরফের হয়নি।

২০১৪ সালের লোকসভা ভোটে বাংলায় ২টি কেন্দ্রে পদ্ম ফুঁটেছিল। এখনও পর্যন্ত যা ট্রেন্ড তাতে দুই অঙ্কের সংখ্যায় রাজ্যের গেরুয়া শিবির তাদের বিস্তার লাভ করবে। বাংলা রাজনীতির দিক দিয়ে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ রাজ্য। এখানে বিশেষ নজর দিয়েছিল বিজেপি। বামেরা এবার ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করে। লোকসভা ভোটের আগে তাদের ব্রিগে়ড সমাবেশ তার অন্যতম। সেখানে লাল ঝড় উঠেছিল। কিন্তু তারপরও ইভিএম মানুষ বামেদের বিপক্ষে রায় দিলেন। উল্টে তাঁদের ভোট বিজেপির দিকে গেল বলেই মনে করছেন পর্যবেক্ষকরা। এটা কি বিজেপির মেরুকরণের ফল? একই অবস্থা ত্রিপুরা ও কেরালায়ও। সেখানেও বামেরা দাগ ফোটাতে পারেনি। সারা দেশের নিরিখে বামেরা মার্জিনালাইজড। আগামী দিনে তারা আর ঘুরে দাঁড়াতে পারবে কিনা, সেটাই লাখ টাকার প্রশ্ন।