টিডিএন বাংলা ডেস্ক : প্রশ্নটা করেছিল আমার ফেসবুকতুতো ও বিজেপি দ্বারা সদ্য ব্রেন ওয়াশড এক ভাই। উত্তরটা সেদিন ওকে “অস্পষ্ট” ভাবে দিয়েছিলাম হয়ত আজকের “স্পষ্টতর” সময়ের জন্যেই।
হ্যাঁ, ৯৯% সন্ত্রাসবাদীই হয়ত মুসলিম। কিন্তু ১% মুসলিমও সন্ত্রাসবাদী নয়। কারন বিশ্বের সমগ্র মুসলিম জনসংখ্যা হয় ১.৬ বিলিয়ন। অর্থ্যৎ, ১৬০০০০০০০০ জন। যার মাত্র ১%-ই হয় ১ কোটি ৬০ লক্ষ জন। এখন ভাবুন, সারা বিশ্বে এতগুলো সন্ত্রাসবাদী যদি থাকত তবে আপনি আমি আজও কী বেঁচে থাকতাম ??
তাই ১% এরও কম মানুষের জন্য একটা সমগ্র জাতিকে অপরাধীর মতন করে দেখা কতটা যুক্তিপূর্ণ বিবেচনা করবেন না কী ? হ্যাঁ, এক গর্বিত হিন্দুর সন্তান হয়েও এই প্রশ্ন করছি…
Islamic terrorism বা ইসলামীয় সন্ত্রাসবাদ শব্দটি আমার কাছে গুরুত্বহীন । হ্যাঁ, সন্ত্রাসের কোনও ধর্ম হয় না। (লিখছিঃ দেবাংশু ভট্টাচার্য্য Dev) কারন যে লোকগুলি গরুর মাংস থাকার ভ্রান্ত ধারনায় কয়েক ডজন সাধারন মানুষকে পিটিয়ে মেরে দেয়, সেই লোকগুলির ‘সন্ত্রাসবাদী” পদবীর আগে যদি Hindu শব্দ না বসে, তবে Islamic terrorism বলেও কিছু হয় না।
আসুন, কিছু শিখ সন্ত্রাসবাদী সংগঠনের নাম জানি..
১. বব্বর খালসা
২. ভিন্দ্রনওয়ালা টাইগারস ফোর্স
৩. দশমেশ রেজিমেন্ট
৪. দল খালসা
৫. ISYF
৬. KMDK
৭. KLF
৮. KCF
৯. KLA
এমন আরও খান পঞ্চাস সংগঠন আছে যারা শিখ ধর্মের নাম করে সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপ সংগঠিত করে..।
এবার শুনুন কিছু খ্রীষ্টান উগ্রবাদী সংগঠনের কথা…
১. The Army of God
২.  Eastern Lightning, a.k.a. the Church of the Almighty God
৩.  The Lord’s Resistance Army (LRA)
৪.  The National Liberation Front of Tripura
৫.  The Phineas Priesthood
৬.  The Concerned Christians
এবার আসুন, সবচেয়ে শান্তির ধর্ম “বুদ্ধিষ্ট” দের কিছু সন্ত্রাসবাদী গ্রুপের নাম শুনি…
১. Bodu Bala Sena
২. BSBS
৩. Ma Ba Tha (MBT)
৪. 696 Organization
এবার শুনুন কিছু হিন্দু সন্ত্রাসবাদীর নাম..
১. GFP Ramdir Sena
২. নাথুরাম গডসে
এবং যারা নিরিহ মুসলিমদের রোজ কোথাও না কোথাও পিটিয়ে মারছে তারাও…
বাকি রইল মুসলিম সন্ত্রাসবাদী সংগঠন, যার নামগুলি আমার না বলে দিলেও চলবে ! এখন আমার জীজ্ঞাস্য, আমরা কী থেকে মুক্তি চাই ? Terrorism থেকে নাকি Islamic terrorism থেকে ? আশা করি সমস্ত রকমের টেররিজম থেকেই মুক্তির দাবী আমাদের সমান..
Islamic terrorism- Islamic terrorism বলতে বলতে আমাদের খেয়ালই করা হয়নি যে উত্তরপ্রদেশ থেকে গ্রেফতার হয়েছেন লষ্কর-এ-তৈবার সন্ত্রাসবাদী সন্দিপ শর্মা । হ্যাঁ, ধর্মে তিনি একজন হিন্দু। কিন্তু কর্মে একজন সন্ত্রাসবাদী । তাই আমার কাছে তার ধর্ম পরিচয় গৌন ।
প্রথমেই আপনাদের বললাম যে, সারা বিশ্বের ১% মুসলিমও যদি সন্ত্রাসবাদী হত তবে এই বিশ্বে আর কোনও প্রান জীবিত থাকত না । এখন এই ১% বাদ দিয়ে বাকি ৯৯% কেমন ?? আসুন অমরনাথে। এক প্রকৃত মুসলমানকে দেখবেন.. নাম সেলিম। নিজের প্রাণের উপর খেলে ‘সন্ত্রাসবাদী’দের হাত থেকে বাঁচিয়েছেন ৫০ জন হিন্দু তীর্থযাত্রীকে।
বড় অদ্ভুত লাগে তাই না ?
ধরুন আপনি একজন ভদ্র অথচ ক্ষমতাবান রাজনীতিবীদ । পাশের এলাকার কোনও দুষ্কৃতি আপনার নাম ব্যবহার করে সাধারন মানুষের কয়েক লক্ষ টাকা লুট করে পালালো । এখন, ওই পাবলিক স্বাভাবিক ভাবেই আপনাকে ভিলেন ভাববে, কিন্তু আদৌ কী আপনি তাই ? তাই কেউ যদি ‘আল্লা হু আকবর’ বলে গুলি চালায়, মুন্ডু কাটে, তাতে ‘আল্লা’র কী দোষ বলুন তো ? কেউ যদি ‘ব্যোম কালি’ বলে আপনার থেকে টাকা চেয়ে বলে না দিলে ভগবান অভিশাপ দেবেন, তাতে মা কালির দোষটা কোথায় বলুন তো ?
তাহলে দোষ যদি আল্লার না হয় তাহলে Islamic terrorism শব্দটাই যে অর্থহীন হয়ে যায় । একটি ধর্মকে একদল মৌলবি যদি তাদের স্বার্থসিদ্ধির জন্য বিকৃত করে বোঝায়, তাতে সেই ধর্মগ্রন্থের দোষ কোথায় ? আল্লা কোথাও বলেনি হিন্দু মারলে স্বর্গে স্থান হবে এবং সেখানে কয়েক ডজন রমনী রোজ এসে এসে যৌন মিলন করবে.. এ সবই একদল শয়তান মৌলবির বানানো । (লিখছিঃ দেবাংশু ভট্টাচার্য্য Dev) ঠিক যেভাবে একদল হিন্দু ধর্ম নেতা (যাদের আমরা বিজেপি বলে চিনি), যাদের সর্বোচ্চ নেতৃত্ব বিবেকানন্দের ছবির সামনে ছাড়া ইন্টারভিউ দেননা, সেই তারাই যখন বলেন “হয় তুমি রামজাদা, নয় হারামজাদা” তখন কী আপনার মনে হয় তারা গীতার স্লোক বলছে ?? নাঃ…মনে হয় না অন্তত আমার ।
তাই, terrorism terrorism-ই । এর কোনও ধর্মের মোড়ক নেই । একদল টুপি,টিকিধারি শয়তান নিজ স্বার্থসিদ্ধি ও ক্ষমতার লিপ্সায় আমার আপনার ধর্মকে বিকৃত করে প্রতিস্থাপন করে । আমরা কেউ কেউ সেই ফাঁদে পা দিই..  এতে আল্লা, কালি বা যিশু খ্রীষ্টের দোষটা কোথায় বলুন তো ?
দোষ অবশ্য একটা আছে..আজও কেন মহাপ্রলয়ের মাধ্যমে এই সমস্ত শয়তানদের ভূগর্ভে গ্রাস করে নিচ্ছেন না দেবতারা ? এটা আমার ক্ষোভ বলতে পারেন..
শেষে বলি,হ্যাঁ মশাই ! হিন্দু আমিও । বরং বলতে পারেন হিন্দুত্ববাদী…তবে আমার কাছে হিন্দুত্ববাদ মানে মুসলিম ঘৃনা নয়, বরং হিন্দু ধর্মকে কলুষমুক্ত করার প্রয়াসে অঙ্গিকারবদ্ধ হওয়া । এবং একজন হিন্দু হিসাবে আমি বুঝি, আমার ধর্মের সবচেয়ে বড় কলঙ্ক হল বিজেপি নামক একটি সংগঠন । মুসলিম বন্ধুদেরও কিন্তু এবার তাদের শত্রুকে চিহ্নিতকরন করতে হবে..
এক হাতে তালি বেশিদিন বাজে না..-দেবাংশু ভট্টাচার্য্য Dev
ফেসবুক থেকে নেওয়া।