মোকতার হোসেন মন্ডল: অনৈতিক ও সংকীর্ণ স্বার্থপরতার নিরিখে যে বন্ধুত্ব তৈরি হয় তা মানবতার জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর।
ইজরাইল রাষ্ট্র যদি ফিলিস্তিনীদের মেরে শেষ করে দেয় তবুও আরব,ভারত,আমেরিকার সরকার কথা বলে না,কেননা ওই রাষ্ট্র তাদের বন্ধু। আবার বাংলাদেশ সরকার যদি সব হিন্দুদের মেরে দেয় তবুও ভারত কথা বলবে না,কেননা ওই রাষ্ট্রটি ‘ভারতের বন্ধু’। চীন যদি উইঘুর মুসলিমদের শেষ করে দেয় তবুও পাকিস্তান কথা বলবে না,কেননা চীন পাকিস্তানের বন্ধু। অনুরূপ ভাবে মায়ানমার সেনাবাহিনী রোহিঙ্গাদের হত্যা করলে চীন কথা বলবে না।
আবার আফগানিস্তান, ইরাক,সিরিয়ার জনগণকে ন্যাটোবাহিনী,আমেরিকা,ইজরাইল,রাশিয়া,আরব,ইরানের বাহিনী খুন করলেও কেউ কিছু বলেনা, কেননা এর সাথে কমবেশি সব রাষ্ট্র জড়িত।

বলে রাখা ভালো,এইসব রাষ্ট্রের সরকার আর ওইসব দেশের সব জনগণ এক নয়। দেশের জনগণের অনেকেই অন্যায়ের বিরুদ্ধে কথা বলেন, কিন্তু রাষ্ট্রের কথা বেশি আলোচিত হয় বলে জনগণের কথা তেমন প্রচারিত হয় না।

রাষ্ট্রীয় প্রেক্ষাপটের বাইরে আপনার আমার রাজনীতি, কর্মক্ষেত্র, পরিবারের মধ্যেও এই জঘন্য রোগটি আছে। কংগ্রেস,বামেরা এতদিন পিটিয়েছে সুতরাং এখন ওদের পেটাতে হবে,অমুক জমির আল ভেঙেছে সুতরাং তাকে ‘শিক্ষা’ দিতে হবে,এইসব হাজারো নীতিহীন সম্পর্ক মানবতার বারোটা বাজাচ্ছে।

তাই রাষ্ট্র হোক বা ব্যাক্তি- বন্ধুত্ব হওয়া উচিত চরিত্র ও আদর্শের ভিত্তিতে। কেউ যদি মানবতা বিরোধী কাজ করে তবে সে যতই আত্মীয় হোক তার সাথে সম্পর্ক রাখা উচিত হবেনা।