পাঠকের কলমে, টিডিএন বাংলা : মুর্শিদাবাদ জেলায় বিশ্ববিদ্যালয়ের  প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে সকলের জানা। ‘কেন দরকার’  সে বিষয়ে আলোচনা প্রচুর হয়েছে। ‘কেন দরকার?’ – এই প্রশ্ন যে এখনও করবে, ভাবতে হবে সেও, এই জেলাকে পিছিয়ে দেওয়ার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত।

বঞ্চনার  সীমা অতিক্রম করে গেছে। যেখানে রাজ‍্যে নতুন নতুন বিশ্ববিদ্যালয় তৈরি হচ্ছে। নতুন নতুন জেলা উদ্বোধনের সঙ্গে সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘোষণা হয়ে যাচ্ছে, সেখানে মুর্শিদাবাদের সঙ্গে এই বিমাতৃসুলভ আচরণের কারণ কি? না এখনও ভাবা হচ্ছে – মুর্শিদাবাদে বিশ্ববিদ্যালয় তৈরি হলে রাজমিস্ত্রির জোগান কোথা থেকে হবে? তাই বলি ঘরোয়া আন্দোলন অনেক হল। মনে হচ্ছে  আমাদের আওয়াজ নবান্ন পযর্ন্ত পৌছাচ্ছে। তাই এবার রাস্তায় নামতেই হবে।

ইতিহাস প্রসিদ্ধ যে জেলার অতীত গরিমা গর্ব করার মতো, যে জেলার বর্তমান জনসংখ্যা প্রায় ৮০ লক্ষ, যে জেলায় কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়েরও আগে কলেজ স্থাপিত হয়েছে, সেই জেলায় স্বাধীনতার ৭০ বছর পরেও বিশ্ববিদ্যালয় না হওয়াটা বিস্ময়ের ও ক্ষোভের বৈকি ! তাই ঘরোয়া সভা, সেমিনারের দিন শেষ। এখন রাস্তায় নেমে অধিকার আদায় করে নেওয়ার পালা।

আসিকুল আলম
(অন‍্যতম কর্মকর্তা – বেঙ্গল মাদ্রাসা এডুকেশন ফোরাম)