টিডিএন বাংলা ডেস্ক: বাচ্চাদের সোশ্যাল মিডিয়ায় আসক্তির অন্যতম কারণ, অস্বাস্থ্যকর খাবার গ্রহণ। সমীক্ষায় উঠে এল এমনই তথ্য।

আপনার সন্তান যদি সোশ্যাল মিডিয়ায় আসক্ত হয় তাহলে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিচ্ছেন নিউট্রিশনিস্টরা৷ তারা জানাচ্ছেন, সোশ্যাল মিডিয়ায় দেখানো বিভিন্ন খাবারের অ্যাড, রেসিপি ভিডিও, ইউটিউব ব্লগিং অল্পবয়সী ছেলেমেয়েদের মধ্যে অস্বাস্থ্যকর খাওয়ার অভ্যাস তৈরি করে৷
৯ থেকে ১১ বছর বয়সী ১৭৬ জনকে নিয়ে সমীক্ষা চালান গবেষকরা। যার রিপোর্ট ব্রিটেনের অফকম চিলড্রেন-এ প্রকাশিত হয়। সেখানে বলা হয়, ৮-১১ বছর বয়সী ছেলেমেয়েদের ৯৩ শতাংশ অনলাইনে থাকে, ৭৭ শতাংশ ইউটিউবে ভিডিও দেখে, ১৮ শতাংশের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট রয়েছে৷ ১২ থেকে ১৫ বছর বয়সীদের মধ্যে ৯৯ শতাংশই অনলাইনে থাকে, ৮৯ শতাংশ ইউটিউব অ্যাকসেস করে এবং ৬৯ শতাংশের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্ট রয়েছে৷

গবেষকরা জানিয়েছেন, যারা ইনস্টাগ্রাম এবং ইউটিউবে ফুড ভ্লগারদের ফলো করে তাদের মধ্যে অস্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়ার প্রবণতা অন্যদের তুলনায় ৩২ শতাংশ বেশি৷ যার ফলে প্রয়োজনের তুলনায় ২৬ কিলো ক্যালোরি তাদের শরীরে বাড়তি পৌঁছচ্ছে৷

গবেষকদের মতে অল্পবয়সীদের মধ্যে সেলিব্রিটিদের তুলনায় ভ্লগারদের ফলো করার প্রবণতা বেশি দেখা যায়৷ ফলে সেলিব্রিটিদের স্বাস্থ্যকর ডায়েট চার্টের থেকে ভ্লগারদের পোস্ট করা মনলোভা ছবি তাদের বেশি আকর্ষণ করে৷