টিডিএন বাংলা ডেস্ক: মদ খান? তবে সাবধান। মদ সেবনে নষ্ট হতে পারে লিভার। আর মদ খাওয়া বন্ধ করলেই লিভার আবার আগের মতোই চাঙ্গা হবে। বিশ্ব লিভার দিবসে এমনই তথ্য প্রকাশ করলেন বিশেষজ্ঞরা।

উল্লেখ্য, মদ্যপানজনিত লিভারের রোগ দিনের পর দিন বাড়ছে। যা স্বাস্থ্যের পক্ষে বিশেষ করে লিভারের পক্ষে অত্যন্ত হানিকর হয়ে উঠেছে। সিরোসিস অফ লিভার নিয়ে যখন কোন ও রোগী চিকিৎসকের কাছে আসেন,হাতে সময় থাকেনা। ওষুধে নিয়ন্ত্রণে রাখলেও, পুরোপুরি সারে না। কারন কিছু দিন ঠিক থাকার পর আবার মদ্য পানের দিকে আকৃষ্ট হন। এই অবস্থায় একজন সাইকোলজিস্টের ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। ফর্টিস হাসপাতালের গ্যাস্ট্রো এন্টেরোলজি বিভাগের প্রধান ‌ডাঃ দেবাশিস দত্ত শুক্রবার বিশ্ব লিভার দিবস উপলক্ষে এক সাংবাদিক বৈঠকে এ কথা জানান। তিনি বলেন, বহু রোগীর কাছে মদ্যপান নেশা। মদ ছাড়া ঘুম হয় না, থাকতেই পারেন না। এরকম দেখলে আমরা সাইকোলজিস্টের কাছে রেফার করি। যৌথ চিকিৎসায় আশানুরূপ ফল মিলেছে। মনোরোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ সঞ্জয় গর্গ বলেন, নিয়মিত মদ্যপান করতে করতে হঠাৎ বন্ধ করলে শরীরে অস্বস্তি হয়, ঘুম আসে না,কাঁপছে,বিরক্তি দেখা দেয়। ফলে অনেকেই আবার মদ্যপানের নেশা শুরু করেন।এই রকম অবস্থাতেই আমরা সাইকোলজিক্যাল সাপোর্ট দিই, যাতে ফের মদ্যপান শুরু না করেন।তার জন্য ঔষুধের থেকেও কাউন্সেলিং গুরুত্বপূর্ণ। বিভিন্ন সাইকোথেরাপি, অভ্যাসের পরিবর্তন, নিজের থেকে মদ্যপান বর্জনের জন্য আত্মবিশ্বাস বাড়ানো, পরিবারকে বোঝানো হয়। কাজের চাপ,হতাশা, একাকিত্ব থেকেই বাড়ছে মদ্যপানের প্রবণতা।