টিডিএন বাংলাঃ কথায় আছে নারীর সতীত্ব, আত্মবিশ্বাস দৃঢ় ও জোরদার হয়ে ওঠে তার একগুচ্ছ চুলের বাহারে। তাই যেদিন এই চুলের বেণিটা রুক্ষ, শুষ্ক ও ছেঁড়াছেঁড়া হয়ে থাকে সেদিনই যেন চিন্তার শেষ থাকেনা।
শীতের মৌসুমে বেশিরভাগ নারীদের দিনগুলোই যেন এলোমেলো হয়ে থাকে। ঠান্ডা হাওয়া চুলের আদ্রতা তো কেড়ে নেয়ই, তার সঙ্গে যুক্ত হয় চুল ওঠা। তবে শীতের মৌসুমে চুলের নানা সমস্যার সমাধানও কিন্তু রয়েছে। তাহলে জেনে নেওয়া যাক প্রাকৃতিক উপাদানের মাধ্যমে চুলকে আরও মজবুত এবং সুন্দর করে তোলা যায় কিভাবে?

hair fall

চুলের গোড়া মজবুত করতে মেথির প্রয়োজনীয়তাঃ চুলের গোড়া মজবুত করতে এবং চুলের ভাঙন থামাতে মেথির জুড়ি নেই। তাছাড়া এতে থাকে প্রোটিন এবং নিকোটিনিক অ্যাসিড।
এর মধ্যে থাকা হরমোন চুলের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

♦ সরষে দানার ভুমিকাঃ চুলের জন্য সবচেয়ে ভালো কন্ডিশনার সরষে দানা। কারণ এতে থাকা প্রোটিন, ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড চুলের পুষ্টির মারাত্মক সহায়ক।
চুল পড়া দ্রুত কমিয়ে দিতে পারে সরষে, কারণ এর মধ্যে রয়েছে ফাঙ্গাসরোধক এবং ব্যাকটেরিয়ারোধক উপাদান।

♦ মাথার খুসকি থেকে বাঁচতে কালো জিরার প্রয়োজনীয়তাঃ মালাসেজিয়া ফাঙ্গাসের কারণে মাথায় খুসকি হয়। এর হাত থেকে বাঁচতে কালো জিরার তেল বা ব্ল্যাক সিড অয়েলের ব্যবহার করতে পারেন।
খুসকির হাত থেকে বাঁচবেন। তাছাড়া এই তেল মাথার ত্বকেরও উপকার করে। তাতে চুল পড়া অনেকটাই কমে যায়।

♦ লাউ দানার রসের বাবহারঃ জিঙ্ক, আয়রন, কপার, ভিটামিন-ই-এর মতো গুরুত্বপূর্ণ পুষ্টিগুণ উপস্থিত লাউ দানার রস। মাথার ত্বকের ডিপ কন্ডিশনিং-এর দরকার পড়লে এর বিকল্প নেই।
নিয়মিত এই রস ব্যবহার করলে চুল পড়া অনেকটাই কমতে বাধ্য। এমনকী চুল পড়া পুরোপুরি বন্ধও হয়ে যেতে পারে।

♦ চুলের গড়া মজবুত করতে তিলের ভুমিকাঃ ভিটামিন, মিনারেল ও পুষ্টিগুণের দুর্দান্ত সংমিশ্রণ তিল বা তিলের তেল। স্কাল্প বা মাথার ত্বক শুষ্ক হয়ে গেলে ময়শ্চারাইজ করতে চাইলে তিল ব্যবহার করুন।
তিলের মধ্য থাকা ওমেগা ফ্যাটি অ্যাসিড চুলের গোড়া মজবুত করবে। সেই সঙ্গে গোড়ায় রক্ত চলাচল বাড়বে মারাত্মক ভাবে। ফলে চুল পড়া বন্ধ হবে অনেকটাই।